পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


こ > 。 চয়নিক পশ্চিমে বিচ্ছিন্ন মেঘে সায়াহ্নের পিঙ্গল আভাস রাঙাইছে আঁখি । বিদ্যুৎ-বিদীর্ণ শূন্যে ঝাকে ঝাকে উড়ে চলে যায় উৎকষ্ঠিত পাখি ॥ বীণাতন্ত্রে হানো হানো খরতর ঝংকার ঝঞ্চন, তোলে উচ্চস্থর । হৃদয় নির্দয়ঘাতে ঝঝরিয়া ঝরিয়া পড়ক প্রবল প্রচুর । ধাও গান প্রাণভরা ঝড়ের মতন উধব বেগে অনন্ত অাকাশে । উড়ে যাক দূরে যাক বিবর্ণ বিশীর্ণ জীর্ণ পাতা বিপুল নিঃশ্বাসে ॥ আনন্দে আতঙ্কে মিশি’ ক্ৰন্দনে উল্লাসে গরজিয়া মত্ত হাহারবে ঝঞ্চণর মঞ্জীর বাধি’ উন্মাদিনী কালবৈশাখীর নৃত্য হোক তবে । ছন্দে ছন্দে পদে পদে অঞ্চলের অাবত-আঘাতে উড়ে হোক ক্ষয় ধুলিসম তৃণসম পুরাতন বৎসরের যত নিস্ফল সঞ্চয় ॥ হে নুতন, এসে তুমি সম্পূর্ণ গগন পূর্ণ করি’ পুঞ্জ পুঞ্জ রূপে, ব্যাপ্ত করি লুপ্ত করি স্তরে স্তরে স্তবকে স্তবকে ঘন ঘোর স্তপে ।