পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२>8 চয়নিক পুরাতন-পর্ণপুট দীর্ণ করি বিকীর্ণ করিয়া অপূর্ব আকারে তেমনি সবলে তুমি পরিপূর্ণ হয়েছ প্রকাশ,— প্রণমি তোমারে ॥ তোমারে প্রণমি আমি, হে ভীষণ, কুস্নিগ্ধ শু্যামল, অক্লাস্ত অমান । সদ্যোজাত মহাবীর, কী এনেছ করিয়া বহন কিছু নাহি জানো । উড়েছে তোমার ধ্বজা মেঘরন্ধ চু্যত তপনের জলদfচ-রেখা ; করজোড়ে চেয়ে আছি উধ্বমুপে, পড়িতে জানি না কী তাহাতে লেখা ॥ হে কুমার, হাস্যমুখে তোমার ধন্সকে দাও টান বানন রনন, বক্ষের পঞ্জর ভেদি অন্তরেতে হউক কম্পিত স্বতীব্র স্বনন । হে কিশোর, তুলে লও তোমার উদার জয়ভেরী, করহ জাহবান । আমরা দাড়াব উঠি, আমরা ছুটিয়া বহিরিব, অপিব পরান ॥ চাব ন পশ্চাতে মোরা, মানিব ন| বন্ধন ক্ৰন্দন, হেরিব না দিক, গনিব না দিনক্ষণ, করিব না বিতর্ক বিচার, উদাম পথিক ।