পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক মুহূর্তে করিব পান মৃত্যুর ফেনিল উন্মত্তত। উপকণ্ঠ ভরি’,— খিন্ন শীর্ণ জীবনের শত লক্ষ ধিক্কার লাঞ্ছনা উৎসর্জন করি’ ৷ শুধু দিন-যাপনের শুধু প্রাণ-ধারণের মানি, শরমের ডালি, নিশি নিশি রুদ্ধ ঘরে ক্ষুদ্রশিখা স্তিমিত দীপের ধুমাঙ্কিত কালি, লাভ ক্ষতি টানাটানি, অতি সূক্ষ্ম ভগ্ন অংশ ভাগ, কলহ সংশয়, সহে না সহে না আর জীবনেরে থও খণ্ড করি’ দণ্ডে দণ্ডে ক্ষয় ॥ যে-পথে অনস্থ লোক চলিয়াছে ভীষণ নীরবে সে-পথ প্রাস্তের এক পাশ্বে রাথো মোবে, নিরপিব বিরাট স্বরূপ যুগ-যুগাস্তের । শু্যেনসম অকস্মাং ছিন্ন ক’রে উধের লয়ে যাও পঙ্ককু গু হতে, মহান মৃত্যুর সাথে মুখোমুখি ক’রে দাও মোরে বজের অালোতে ॥ তার পরে ফেলে দাও, চূর্ণ করে যাহা ইচ্ছা তব, ভগ্ন করো পাখা । যেখানে নিক্ষেপ করে হৃতপত্র, চু্যত পুষ্পদল, ছিন্নভিন্ন শাখা, S》(