পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক আপন মাসির কাছে । তার জন্ম-পরে বহুদিন ভুগেছিন্ত স্থতিকার জরে বাচিব ছিল না আশা ; অন্নদা তখন আপন শিশুর সাথে দিয়ে তারে স্তন মানুষ করেছে যত্নে,—সেই হতে ছেলে মাসির আদরে আছে মার কোল ফেলে । দুরন্ত, মানে না কারে, করিলে শাসন মাসি আসি অশ্রুজলে ভরিয়া নয়ন কোলে তারে টেনে লয় । সে থাকিবে মুখে মা’র চেয়ে আপনার মাসিমার বুকে ।” সম্মত হইল বিপ্র । মোক্ষদা সত্বর প্রস্তুত হইল—র্বাধি’ জিনিসপত্তর, প্ৰণমিয় গুরুজনে—সখীদলবলে । ভাসাইয়া বিদায়ের শোক-অশ্রুজলে । ঘাটে আসি দেখে, সেথা আগেভাগে ছুটি', রাখাল বসিয়া অাছে তরী-’পরে উঠি” নিশ্চিস্ত নীরবে । “তুই হেথা কেন ওরে ।” মা শুধাল ; সে কহিল, “যাইব সাগরে ৷” “যাইবি সাগরে, অারে, ওরে দস্থ্য ছেলে, নেমে আয় ।” পুনরায় দৃঢ় চক্ষু মেলে সে কহিল দুটি কথা “যাইব সাগরে ৷” যত তার বাহু ধরি’ টানাটানি করে, রহিল সে তরণী অঁাকড়ি’ । অবশেষে ব্রাহ্মণ করুণ স্নেহে কহিলেন হেসে, “থাক থাক সঙ্গে যাক ৷” মা রাগিয়া বলে “চল তোরে দিয়ে আসি সাগরের জলে ।” যেমনি সে কথা গেল আপনার কানে অমনি মায়ের বক্ষ অস্থতাপ-বাণে 는