পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


९७७ চয়নিক শুধু একবার চুম্বিল তার রাঙা উষ্ণীযখানি । তার পরে ধীরে কটিবাস হতে ছুরিকা খসায়ে আনি, বালকের মুখ চাহি? “গুরুজীর জয়” কানে কানে কয়,-“রে পুত্র, ভয় নাহি ॥” নবীন বদনে অভয় কিরণ জলি” উঠে উৎসাহি’— কিশোরকণ্ঠে কাপে সভাতল বালক উঠিল গাহি’,— “গুরুজীর জয়, কিছু নাহি ভয়” বন্দার মুখ চাহি ॥ বন্দ তখন বামবাহুপাশ জড়াইল তার গলে, দক্ষিণ করে ছেলের বক্ষে ছুরি বসাইল বলে, “গুরুজীর জয়”, কহিয়া বালক লুটাল ধরণীতলে । সভা হোলো নিস্তব্ধ । বন্দার দেহ ছিড়িল ঘাতক সাড়াশি করিয়া দগ্ধ । স্থির হয়ে বীর মরিল, না করি’ একটি কাতর শব্দ দর্শকজন মুদিল নয়ন, সভা হোলো নিস্তব্ধ । ( ৩০শে আশ্বিন, ১৩০৬ ) - উদ্বোধন শুধু অকারণ পুলকে ক্ষণিকের গান গারে আজি প্রাণ ক্ষণিক দিনের আলোকে । যার আসে যায়, হাসে আর চায়, পশ্চাতে যারা ফিরে না তাকায়, নেচে ছুটে ধায়, কথা না শুধায়, ফুটে আর টুটে পলকে, তাহাদেরি গান গারে আজি প্রাণ, ক্ষণিক দিনের জালোকে ।