পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S8는 চয়নিক কপোতটিরে লয়ে বুকে সোহাগ করত মুখে মুখে, সারসীরে খাইয়ে দিত পদ্মকোরক বহি’ । অলক নেড়ে দুলিয়ে বেণী কথা কৈত সৌরসেনী, বলত সখীর গলা ধরে, “হলা পিয় সহি ।” জল সেচিত আলবালে তরুণ সহকারে । প্রিয় নামটি শিখিয়ে দিত সাধের সারিকারে ॥ নবরত্বের সভার মাঝে রৈতাম একটি টেরে, দূর হইতে গড় করিতাম দিঙ নাগাচার্যেরে । আশা করি নামটা হোত ওরি মধ্যে ভদ্রমতেl; বিশ্বসেন কি দেবদত্ত কিম্বা বস্থভূতি । শ্ৰন্ধরা কি মালিনীতে বিস্বাধরের স্তুতিগীতে দিতাম রচি' দুটি চারটি ছোটোখাটো পুথি । ঘরে যেতাম তাড়াতাড়ি শ্লোক রচনা সেরে, নবরত্বের সভার মাঝে রৈতাম একটি টেরে । আমি যদি জন্ম নিতেম কালিদাসের কালে বন্দী হতেম না জানি কোন মালবিকার জালে । কোন বসন্ত-মহোৎসবে বেণুবীণার কলরবে মঞ্জরিত কুঞ্জবনের গোপন অন্তরালে কোন ফাগুনের শুক্ল নিশায় যৌবনেরি নবীন নেশায় চকিতে কার দেখা পেতেম রাজার চিত্রশালে । ছল করে তার বাধত অণচল সহকারের ডালে । আমি যদি জন্ম নিতেম কালিদাসের কালে ৷ হায় রে কবে কেটে গেছে কালিদাসের কাল । পণ্ডিতেরা বিবাদ করে লয়ে তারিখ সাল । হারিয়ে গেছে সে সব অদ, ইতিবৃত্ত আছে স্তন্ধ, গেছে যদি, আপদ গেছে, মিথ্যা কোলাহল । হায় রে গেল সঙ্গে তারি সেদিনের সেই পৌরনারী নিপুণিক চতুরিকা মালবিকার দল ।