পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক २४-१ 衍 দেখিলাম খান-কয় পুরাতন চিঠি— স্নেহমুগ্ধ জীবনের চিহ্ন দু-চারিটি স্মৃতির খেলেনা ক-টি বহু যত্নভরে গোপনে সঞ্চয় করি রেখেছিলে ঘরে । যে-প্রবল কালশ্রেণীতে প্রলয়ের ধারা ভাসাইয়া যায় কত রবি চন্দ্র তারা তারি কাছ হতে তুমি বহু ভয়ে ভয়ে এই ক-টি তুচ্ছ বস্তু চুরি করে লয়ে লুকায়ে রাখিয়াছিলে,—বলেছিলে মনে অধিকার নাই কারো আমার এ ধনে । আশ্রয় আজিকে তারা পাবে কার কাছে । জগতের কারো নয় তবু তারা আছে । তাদের যেমন তব রেখেছিল স্নেহ তোমারে তেমনি আজ রাখেনি কি কেহ । স্মরণ ।— ( ه ۰ تاد و ]] * ) শিশুলীলা জগং-পারাবারের তীরে ছেলেরা করে মেলা । অস্তহীন গগনতল মাথার পরে আচঞ্চল, ফেনিল ওই সুনীল জল নাচিছে সারাবেলা । উঠিছে তটে কী কোলাহল— ছেলেরা করে মেলা ॥