পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S$3 চয়নিক স্নান চোখে তাই ভাসিতেছে তুরাশার সুখের স্বপন । চারিদিকে প্রভাতের অণলেণ নয়নে লেগেছে বড় ভালো, অণকাশেতে মেঘের মাঝণরে শরতের কনক তপন । কত কে-যে আসে, কত যায়, কেহ হাসে, কেহ গান গায়, কত বরনের বেশ ভূষা— ঝলকিছে কাঞ্চন-রতন,— কত পরিজন দাস দাসী, পুষ্প পাত। কত রাশি রাশি, চোখের উপর পড়িতেছে মরীচিকণ-ছবির মতন । হেরে। তাই রহিয়াছে চেয়ে শূন্তমনা কাঙালিনী মেয়ে । শুনেছে সে, ম: এসেছে ঘরে. তাই বিশ্ব আনন্দে ভেসেছে, মা’র মায়ণ পায় নি কখনো, মা কেমন দেখিতে এসেছে । তাই বুঝি আঁখি ছলছল, বাম্পে ঢাকা নয়নের তারা । চেয়ে যেন মা’র মুপপানে বালিকা কাতর অভিমানে বলে,—ম গো এ কেমন ধারা । এত বাশি এত হাসিরাশি, এত তোর রতনভূষণ, छूझे बनि श्रांभांब्र छननौ, মোর কেন মলিন বসন ।—