পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৩৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিকা জীবন-উৎসব-শেষে দুই পায়ে ঠেলে মৃৎপাত্রের মতো যাও ফেলে । তোমার কীর্তির চেয়ে তুমি-যে মহৎ, তাই তব জীবনের রথ পশ্চাতে ফেলিয়া যায় কীতিরে তোমার বারংবার | তাই চিহ্ন তব পড়ে আছে, তুমি হেথা নাই । যে প্রেম সম্মুখপানে চলিতে চালাতে নাহি জানে, যে প্রেম পথের মধ্যে পেতেছিল নিজ সিংহাসন, তার বিলাসের সম্ভাষণ পথের ধুলার মতো জড়ায়ে ধরেছে তব পায়ে, দিয়েছ ত, ধুলিরে ফিরায়ে । সেই তব পশ্চাতের পদধূলি-পরে তব চিত্ত হতে বায়ুভরে কখন সহস৷ উড়ে পড়েছিল বীজ জীবনের মাল্য হতে খসা । তুমি চলে গেছ দূরে সেই বীজ অমর অঙ্কুরে উঠেছে অম্বরপানে, কহিছে গম্ভীর গানে— যত দূর চাই নাই নাই সে-পথিক নাই । প্রিয়া তারে রাখিল না, রাজ্য তারে ছেড়ে দিল পথ, রুধিল না সমুদ্র পর্বত। चंचिश् ख्ांङ्ग ब्रथ्। \OCO.