পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক ©\ይግ দেখলে বাপের নূতন ক'রে সাজসজ্জ শুরু, হঠাৎ কালে ভ্রমরকৃষ্ণ ভুরু, পাকাচুল সব কথন হোলো কটা, চাদরেতে যখন-তখন গন্ধ মাথার ঘট । মার কথা আজ মঞ্জুলিকার পড়ল মনে বুকভাঙা এক বিষম ব্যথার সনে । হোক না মৃত্যু, তবু এ বাড়ির এই হাওয়ার সঙ্গে বিরহ তার ঘটে নাই তো কভু । কল্যাণী সেই মূর্তিখানি মুধামাখা এ সংসারের মর্মে ছিল আঁকা ; সাধবীর সেই সাধনপুণ্য ছিল ঘরের মাঝে, র্তারি পরশ ছিল সকল কাজে । এ সংসারে তার হবে আজ পরম মৃত্যু, বিষম অপমান— সেই ভেবে-যে মঞ্জুলিকার ভেঙে পড়ল প্ৰাণ । ছেড়ে লজ্জা ভয় কন্যা তখন নি:সংকোচে কয় বাপের কাছে গিয়ে,— “তুমি নাকি করতে যাবে বিয়ে । আমরা তোমার ছেলে মেয়ে নাতনি নাতি যত সবার মাথা করবে নত । মায়ের কথা ভুলবে তবে । তোমার প্রাণ কি এত কঠিন হবে ।” বাবা বললে শুষ্ক হাসে, , “কঠিন আমি কেই-বা জানে না সে ।