পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক غ۹ (نی( সেই আমারে ব'লে যেত কোথায় আলেখ-লতা, সাগরপারের দৈত্য-পুরের রাজকন্যার কথা ; দেখতে পেতেম দুয়োরানীর চক্ষু ভরো-ভরো শিউরে উঠে পাতা আমার র্কাপত থরোথরো । হঠাৎ কখন বৃষ্টি তোমার হাওয়ার পাছে পাছে নামত আমার পাতায় পাতায় টাপুর-টুপুর নাচে ; সেই হোত তোর কঁাদন স্বরে রামায়ণের পড়া, সেই হোত তোর গুনগুনিয়ে শ্রাবণ-দিনের ছড়া । মা, তুই হতিস নীলবরনী, আমি সবুজ কাচা ; তোর হোত, মা, আলোর হাসি, আমার পাতার নাচ । তোর হোত মা, উপর থেকে নয়ন মেলে চাওয়া, আমার হোত ঠাকুবাকু হাত তুলে গান গাওয়া । তোর হোত, মা, চিরকালের তারার মণিমালা, আমার হোত দিনে দিনে ফুল-ফোটাবার পালা । ( * ফাঙ্কন, ১৩২৮ ) —শিশু ভোলানাথ । চিরন্তন যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ন এই বাটে, বাইব না মোর খেয়া তরী এই ঘাটে, চুকিয়ে দেব বেচা কেনা মিটিয়ে দেব লেন-দেনা বন্ধ হবে আনাগোনা এই হাটে ; আমায় তখন নাই-বা মনে রাখলে, তারার পানে চেয়ে চেয়ে নাইবা আমায় ডাকলে ।