পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক وان مواO\ বহ্নি-বীণা বক্ষে লয়ে, দীপ্ত কেশে, উদ্বোধিনী বাণী সে পদ্মের কেন্দ্রমাঝে নিত্য রাজে, জানি তারে জানি । মোর জন্ম-কালে প্রথম প্রত্যুষে মম তাহারি চুম্বন দিলে আনি’ আমার কপালে | o সে চুম্বনে উচ্ছলিল জালার তরঙ্গ মোর প্রাণে, অগ্নির প্রবাহ । উচ্ছসি উঠিল মন্দ্রি’ বারংবার মোর গানে গানে শাস্তিহীন দাহ । ছন্দের বন্যায় মোর রক্ত নাচে সে চুম্বন লেগে, উন্মাদ সংগীত কোথা ভেসে যায় উদাম আবেগে, আপনা-বিস্তৃত । সে চুম্বন-মন্ত্রে বক্ষে অজানা ক্ৰন্দন উঠে জেগে ব্যথায় বিস্মিত ॥ তোমার হোমাগ্নি মাঝে আমার সত্যের আছে ছবি, তারে নমো নমঃ | তমিশ্র স্বপ্তির কূলে যে বংশী বাজাও, আদি কবি, ংস করি তমঃ, সে বংশী আমারি চিত্ত, রন্ধে তারি উঠিছে গুঞ্চরি’ মেঘে মেঘে বর্ণচ্ছটা, কুঞ্জে কুঞ্জে মাধবী মঞ্জরী, নিঝরে কল্পোল । তাহারি ছন্দের ভঙ্গে সর্ব অঙ্গে উঠিছে সঞ্চরি জীবন হিল্লোল । এ প্রাণ তোমারি এক ছিন্ন তান, স্বরের তরণী, আয়ুস্রোত-মুখে হাসিয়া ভাসায়ে দিলে লীলাচ্ছলে, কৌতুকে ধরণী বেঁধে নিল বুকে । s