পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ध्रुङ्गेनिको * |శ్రీపేరీ ক্ষণিক থোলো, খোলো হে আকাশ, স্তব্ধ তব নীল যবনিকা, খুজে নিতে দাও সেই আনন্দের হারানো কণিকা । কবে সে যে এসেছিল আমার হৃদয়ে যুগাস্তরে, গোধূলি বেলার পাস্থ জনশূন্ত এ মোর প্রাস্তরে, লয়ে তার ভীরু দীপশিখা, দিগন্তের কোন পারে চলে গেল আমার ক্ষণিক ॥ ভেবেছিই গেছি ভুলে, ভেবেছিভু পদচিহ্নগুলি পদে পদে মুছে নিল সর্বনাশী অবিশ্বাসী ধূলি । আজ দেখি সেদিনের সেই ক্ষীণ পদধ্বনি তার আমার গানের ছন্দ গোপনে করেছে অধিকার । দেখি তারি অদৃশ্ব অঙ্গুলি স্বপ্নে অশ্র-সরোবরে ক্ষণে ক্ষণে দেয় ঢেউ তুলি’ ৷ বিরহের দূতী এসে তার সে স্তিমিত দীপখানি চিত্তের অজানা কক্ষে কখন রাখিয়া দিল অনি’ । সেখানে যে বীণা আছে অকস্মাং একটি আঘাতে মুহূর্ত বাজিয়াছিল, তার পরে শব্দহীন রাতে বেদনা-পদ্মের বীণাপাণি সদ্ধান করিছে সেই অন্ধকারে-থেমে-যাওয়া বাণী ॥ সেদিন ঢেকেছে তারে কী এক ছায়ার সংকোচন, নিজের অধৈর্য দিয়ে পারেনি তা করিতে মোচন । ভার সেই ত্রস্ত আঁখি, স্বনিবিড় তিমিরের তলে যে-রহস্ত নিয়ে চলে গেল, নিত্য তাই পলে পলে মনে মনে করি যে লুণ্ঠন ৷ চিরকাল স্বপ্নে মোর খুলি তার সে অবগুণ্ঠন ॥ ।