পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


{ { از ۱ * * * o n # | চয়নিক অব্যক্ত ভাগ্যের রাতে লিখিছে আকাশ পাতে এ-দেখার আশ্বাস-অক্ষর । অস্তিত্বের পারে পারে এ-দেখার বারতারে বহিয়াছি রক্তের প্রবাহে । দূর শূন্তে দৃষ্টি রাখি আমার উন্মনা আঁখি এ-দেখার গৃঢ় গান গাহে ॥ বোলো আজি তারে, চিনিলাম তোমারে আমারে । হে অতিথি, চুপে চুপে বারংবার ছায়ারূপে এসেছ কম্পিত মোর দ্বারে । কত রাত্রে চৈত্রমাসে, প্রচ্ছন্ন পুষ্পের বাসে কাছে আসা নিঃশ্বাস তোমার স্পন্দিত করেছে জানি আমার গুণ্ঠন খানি, কাদায়েছে সেতারের তার ॥ ( ২৭শে শ্রাবণ, ১৩৩৫ ) বোলে৷ তারে আজ, “অস্তরে পেয়েছি বড়ো লাজ । কিছু হয় নাই বলা, বেধে গিয়েছিল গলা, ছিল না দিনের যোগ্য সাজ । আমার বক্ষের কাছে পূর্ণিমা লুকানো আছে, সেদিন দেখেছ শুধু অমা । দিনে দিনে অৰ্ঘ্য মম পূর্ণ হবে প্রিয়তম, আজি মোর দৈন্য করে ক্ষম৷ ” -भदृश्ध्रीं ।