পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক দৈবাগত দিনে । শুধু কি চাহিব শূন্তে, কেন নিজে নাহি লব চিনে সার্থকের পথ । কেন না ছুটাব তেজে সন্ধানের রথ দুধর্ষ অশ্বেরে বাধি’ দৃঢ় বলগা পাশে । দুর্জয় আশ্বাসে দুৰ্গমের দুর্গ হতে সাধনার ধন কেন নাহি করি আহরণ প্রাণ করি’ পণ । যাব না বাসর কক্ষে বধুবেশে বাজায়ে কিঙ্কিণী, আমারে প্রেমের বীর্যে করো আশঙ্কিনী । বীর হস্তে বরমাল্য লব একদিন সে-লগ্ন কি একাস্তে বিলীন ক্ষীণদীপ্তি গোধূলিতে । কতু তারে দিব না ভুলিতে মোর দৃপ্ত কঠিনতা । বিনম্র দীনতা সম্মানের যোগ্য নহে তার, ফেলে দেব আচ্ছাদন দুর্বল লজার । দেখা হবে ক্ষুব্ধ সিন্ধুতীরে । তরঙ্গ গর্জনোস্থাস, মিলনের বিজয়ধ্বনিরে দিগস্তুের বক্ষে নিক্ষেপিবে । মাথার গুণ্ঠন খুলি কব তারে, মর্ত্যে বা ত্রিদিবে একমাত্র তুমিই আমার । সমুদ্রপাখির পক্ষে সেইক্ষণে উঠিবে হুংকার পশ্চিম পবন হানি, সপ্তর্ষি আলোকে যবে যাবে তা’রা পন্থা অকুমানি’ । হে বিধাতা আমারে রেখো না বাক্যহীন রক্তে মোর জাগে রুদ্র বীণা ৷ 8ミ>