পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छब्रनिक আলনায় তোয়ালে জামা, খদরের শাড়ি । ছোটো কাচের আলমারিতে নানারকমের পুতুল, শিশি, খালি পাউডারের কোঁটে । চুপ করে বসে রইলেম চৌকিতে টেবিলের সামনে । লাল চামড়ার বাক্স, ইস্কুলে নিয়ে যেত সঙ্গে । তার থেকে খাতাটি নিলেম তুলে, অঁাক কষবার খাতা । ভিতর থেকে পড়ল একটি আখোলা চিঠি, আমার ঠিকানা লেখা, আমলির র্কাচা হাতের অক্ষরে । শুনেছি ডুবে মরবার সময় অতীতকালের সব ছবি এক মুহূর্তে দেখা দেয় নিবিড় হয়ে— চিঠিখানি হাতে নিয়ে তেমনি পড়ল মনে অনেক কথা এক নিমেষে । অমলার মা যখন গেলেন মারা তখন ওর বয়স ছিল সাতবছর । কেমন একটা ভয় লাগল মনে ও বুঝি আর বঁাচবে না বেশিদিন – কেননা বড়ো করুণ ছিল ওর মুখ, যেন অকাল বিচ্ছেদের ছায়া ভাবী কাল থেকে উলটে এসে পড়েছিল ওর বড়ো বড়ো কালো চোখের উপরে । সাহস হোত না ওকে সঙ্গ-ছাড়া করি । 88లీ