পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


88b- চয়নিক যে দুভাগিনীকে দূরের থেকে পাল্লা দিতে হয় অস্তত পাচ সাতজন অসামান্তার সঙ্গে— অর্থাৎ সপ্তরর্থীর মার । বুঝে নিয়েছি আমার কপাল ভেঙেছে, হার হয়েছে আমার । কিন্তু তুমি যার কথা লিখবে, তাকে জিতিয়ে দিয়ো আমার হয়ে, পড়তে পড়তে বুক যেন ওঠে ফুলে’ । ফুল চন্দন পড়ুক তোমার কলমের মুখে । তাকে নাম দিয়ে মালতী । ঐ নামটা আমার । ধরা পড়বার ভয় নেই ; এমন অনেক মালতী আছে বাংলাদেশে, তারা সবাই সামান্ত মেয়ে, তারা ফরাসি জর্মান জানে না, কfদতে জানে । কী ক’রে জিতিয়ে দেবে । উচ্চ তোমার মন, তোমার লেখনী মহীয়সী। তুমি হয়তো নিয়ে যাবে ত্যাগের পথে, দুঃখের চরমে শকুন্তলার মতো । দয়া কোরো আমাকে । নেমে এসো আমার সমতলে । বিছানায় শুয়ে শুয়ে রাজির অন্ধকারে দেবতার কাছে যে অসম্ভব বর মাগি— সে বর আমি পাব না, কিন্তু পায় যেন তোমার নায়িকা । রাখে না কেন নরেশকে সাতৰছর লওনে, বারে বারে ফেল করুক তার পরীক্ষায়,