পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8やミ চয়নিক দুরে থাকিতেই গোপনগন্ধ-ঢালা স্থখসংবাদ মেলিবে হৃদয়মাঝে । এই সুযোগেতে একটুকু দিই খোটা— আমারি দেওয়া সে ছোট্ট চুনির দুল —রক্তে জমানো যেন অশ্রীর ফোট — কতদিন সেটা পরিতে করেছ ভুল । আরেকট। কথা ব’লে রাখি এইখানে, কাব্যে সে কথা হবে না মানানসই, স্বর দিয়ে সেটা গাহিব না কোনো গানে, তুচ্ছ শোনাবে তবু সে তুচ্ছ কই । একালে চলে না সোনার প্রদীপ আনা, সোনার বীণাও নহে আয়ত্তগত । বেতের ডালায় রেশমি রুমাল-টানা অরুণবরন অfম এনে গোটাকত । গদ্যজাতীয় ভোজ্যও কিছু দিয়ো, পদ্যে তাদের মিল খুজে পাওয়া দায় । তা হোক, তবুও লেখকের তা’রা প্রিয়, জেনো, বাসনার সেরা বাসা রসনায় । ঐ দেখো, ওটা আধুনিকতার ভূত মুখেতে জোগায় স্থূলতার জয়ভাষা, জানি, আমরার পথহারা কোনো দূত জঠরগুহায় নাহি করে যাওয়া-আসা । তথাপি পষ্ট বলিতে নাহি তো দোষ যে কথা কবির গভীর মনের কথা— উদর-বিভাগে দৈহিক পরিতোষ সঙ্গী জোটায় মানসিক মধুরতা । শোভন হাতের সন্দেশ পানতোয়া, মাছমাংসের পোলাও ইত্যাদিও ।