পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক 8ዓ> ছেড়ে-আসা বিছানায় খোলা মশারি একটু একটু কঁপিছে বাতাসে। জানলার বাইরের আকাশে দেখা যায় শুকতারা, আশা-বিদায়-করা যত ঘুমহারাদের সাক্ষী । হঠাৎ দেখি ফেলে গেছ ভুলে সোনাবাধানো হাতির দাতের লাঠিগাছটা । মনে হোলো, যদি সময় থাকে, তবে হয়তো স্টেশন থেকে ফিরে আসবে খোজ করতে, কিন্তু ফিরবে না আমার সঙ্গে দেখা হয়নি ব'লে । ( ২৩ মে, ১৯৩৬ ) —তামলী । বিদায়-বরণ চার প্রহর রাতের বৃষ্টি-ভেজা ভারি হাওয়ায় থমকে আছে সকাল বেলাটা, রাত-জাগার ভারে যেন মুদে এসেছে মলিন আকাশের চোখের পাতা । বাজলার পিছল পথে পা টিপে চলেছে প্রহরগুলো । যত সব ভাবনার আবছায়া উড়ছে ঝাক বেঁধে মনের চারিদিকে হালকা বেদনার রং মেলে দিয়ে। তাদের ধরি-ধরি করে মনটা, §: ভাবি, বেঁধে রাখি লেখায় ;