পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


5ग्रनेिक সম্মুখে রাজারে দেথি তুলি নিল ঘাড়ে, ঝুলায়ে বসায়ে দিল উচ্চ এক দাড়ে । নিচেতে দাড়ায়ে এক বুড়ি খুড় খুড়ি, হাসিয়া পায়ের তলে দেয় স্থড় স্কড়ি । রাজা বলে “কী আপদ ।” কেহ নাহি ছাড়ে, পা-দুটা তুলিতে চাহে, তুলিতে না পারে । পাখির মতন রাজা করে ঝটপটু— বেদে কানে কানে বলে—“হিং টিং ছটু ।” স্বপ্নমঙ্গলের কথা অমৃতসমান, গৌড়ানন্দ কবি ভনে, শুনে পুণ্যবান । হবুপুর রাজ্যে আজ দিন ছয় সাত চোখে কারো নিদ্রা নাই পেটে নাই ভাত । শীর্ণ গালে হাত দিয়ে নত করি’ শির রাজ্যস্থদ্ধ বালবৃদ্ধ ভেবেই অস্থির । ছেলেরা ভুলেছে খেলা, পণ্ডিতেরা পাঠ, মেয়েরা করেছে চুপ—এতই বিভ্ৰাট । সারি সারি বসে গেছে কথা নাই মুখে, চিন্তা যত ভারি হয় মাথা পড়ে ঝুকে । ভু ইফোড়া তত্ত্ব ষেন ভূমিতলে খোজে, সবে যেন বসে গেছে নিরাকার ভোজে । মাঝে মাঝে দীর্ঘশ্বাস ছাড়িয়া উৎকট হঠাৎ ফুকারি’ উঠে—“হিং টিং ছট্‌ ৷” স্বপুমঙ্গলের কথা অমৃতসমান, গৌড়ানন্দ কবি ভনে, শুনে পুণ্যবান । চারিদিক হতে এল পণ্ডিতের দল, অযোধ্যা কনোজ কাঞ্চী মগধ কোশল ; @3