পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক ছেলেরা ধরিল খেলা বৃদ্ধের তামুক, এক দণ্ডে খুলে গেল রমণীর মুখ । দেশজোড়া মাথাধরা ছেড়ে গেল চট্‌, সবাই বুঝিয়া গেল—“হিং টিং ছট্‌ ৷” স্বপ্নমঙ্গলের কথা অমৃত সমান, গৌড়ানন্দ কবি ভনে, শুনে পুণ্যবান । যে শুনিবে এই স্বপ্নমঙ্গলের কথা, সর্বভ্রম ঘুচে যাবে নহিবে অন্যথা । বিশ্বে কভু বিশ্ব ভেবে হবে ন ঠকিতে, সত্যেরে সে মিথ্যা বলি’ বুঝিবে চকিতে। যা আছে তা নাই, আর, নাই যাহা আছে, এ কথা জাজল্যমান হবে তার কাছে । সবাই সরলভাবে দেখিবে যা-কিছু, সে আপন লেজুড় জুড়িবে তার পিছু । এসো ভাই, তোলো হাই, শুয়ে পড়ে চিত, অনিশ্চিত এ-সংসারে এ-কথা নিশ্চিত— জগতে সকলই মিথ্যা সব মায়াময় স্বপ্ন শুধু সত্য আর সত্য কিছু নয় । স্বপ্নমঙ্গলের কথা অমৃতসমান, গৌড়ানন্দ কবি ভনে, শুনে পুণ্যবান । ( ১৮ জ্যৈষ্ঠ, ১২৯৯ ) —সোনার তরী