পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চ য়নিক শুধু এক প্রান্তে তার প্রলয়-মগন বাকি আছে একথানি শঙ্কিত মিলন, দুটি হাত ত্ৰস্ত কপোতের মতো, দুটি বক্ষ কুরুদুরু দুই প্রাণে অাছে ফুটি" শুধু একখানি ভয়, একখানি আশা, একখানি আশ্রভরে নম্র ভালবাস । আজিকে এমনি তবে কাটিবে যামিনী আলস্যবিলাসে । অয়ি নিরভিমানিনী, অয়ি মোর জীবনের প্রথম প্রেয়সী, মোর ভাগ্য-গগনের সৌন্দর্বের শশী, মনে আছে, কবে কোন ফুল্ল যুথীবনে বহু বাল্যকালে, দেখা হোত দুইজনে আধো চেনা-শোনা ? তুমি এই পৃথিবীর প্রতিবেশিনীর মেয়ে, ধরার অস্থির এক বালকের সাথে কী খেলা পেলাতে সখি, আসিতে হাসিয়া, তরুণ প্রভাতে নবীন বালিকা-মুতি, শুভ্ৰবস্ত্র পরি’ উষার কিরণ-ধারে সস্থ্যুঃস্বান করি’ বিকচ কুস্বমসম ফুল্প মুখখানি, নিদ্রাভঙ্গে দেখা দিতে, নিয়ে যেতে টানি’ উপবনে কুড়াতে শেফালি ! বারে বারে শৈশব-কর্তব্য হতে ভুলায়ে মামারে, ফেলে দিয়ে পুথিপত্র, কেড়ে নিয়ে খড়ি দেখায়ে গোপন পথ দিতে মুক্ত করি’ পাঠশালা-কার হতে ; কোথা গৃহকোণে নিয়ে যেতে নির্জনেতে রহস্তা-ভবনে إن قوا