পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


سيbr b চয়নিক জনশূন্ত গৃহছাদে আকাশের তলে ; কী করিতে খেলা, কী বিচিত্র কথা ব’লে ভুলাতে আমারে, স্বপ্নসম চমৎকার অর্থহীন, সত্য মিথ্যা তুমি জানো তার । দুটি কর্ণে দুলিত মুকুতা, দুটি করে সোনার বলয়, দুটি কপোলের পরে খেলিত অলক, দুটি স্বচ্ছ নেত্র হতে কঁাপিত আলোক, নিমলি নিঝ র স্রোতে চূর্ণরশ্মিসম । দোহে দোহ। ভালো ক’রে চিনিবার অাগে নিশ্চিস্ত বিশ্বাসভরে খেলাধুলা ছুটাছুটি দু-জনে সতত, কথাবার্তা বেশবাস বিথান বিতত । তারপরে একদিন—কী জানি সে কবে – জীবনের বনে, যৌবন-বসস্তে যবে প্রথম মলয় বায়ু ফেলেছে নিশ্বাস, মুকুলিয়া উঠিতেছে শত নব আশ, সহসা চকিত হয়ে আপন স*গীতে চমকিয় হেরিলাম—থেলাক্ষেত্র হতে কথন অন্তর-লক্ষ্মী এসেছ অস্তরে আপনার অস্তঃপুরে গৌরবের ভরে বসি আছ মহিনীর মতো । কে তোমারে এনেছিল বরণ করিয়া । পুরস্কারে কে দিয়াছে হুলুধ্বনি । ভরিয়া অঞ্চল কে করেছে বরিষন নব পুষ্পদল তোমার আনন্ত্রশিরে আনন্দে অাদরে । হুন্দর সাহান রাগে বংশীর স্বস্বরে কী উৎসব হয়েছিল আমার জগতে, যেদিন প্রথম তুমি পুষ্পষ্ণুল্পপথে