পাতা:চিঠিপত্র (ঊনবিংশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রস্তাবনা রবীন্দ্রনাথ ও সজনীকান্ত প্রসঙ্গ, বহুকাল অতিবাহিত হয়ে, আজও বাংলা ব্যঙ্গ-সুনিপুণ সমালোচক সম্পাদক হিসেবে সজনীকান্ত দাস বাংলা সাহিতো প্রতিষ্ঠা লাভ করেছিলেন। শৈশব থেকে আমৃত্যু তিনি ছিলেন মনেপ্রাণে রবীন্দ্রভক্ত। রবীন্দ্রনাথকে বাদ দিয়ে জীবনের কোনো কাজই সম্পূর্ণ হত না সজনীকান্তের। কিন্তু একসময় সজনীকান্ত ও শনিবারের চিঠির গোষ্ঠী রবীন্দ্র-বিদূষণে শালীনতার সমস্ত সীমারেখা লঙ্ঘন করেছিলেন। এতে রবীন্দ্রনাথ মর্মান্তিক ভাবে আহত হন। জীবন সায়াহ্নে উপনীত হয়ে অপরিসীম স্নেহবশে রবীন্দ্রনাথ তার এই রাবণ-ভক্ত টির চিত্ত জয় করেছিলেন। জীবনের শেষ তিন বছর গুরু-শিষ্যের গুরু-শিষ্যের ব্যক্তিগত সম্পর্কের উত্থান-পতনের ইতিহাস উন্মোচন করাই এই গ্রন্থের মুখ্য উদ্দেশ্য। রবীন্দ্রনাথের পত্রসমূহ পূর্বে দুটি গ্রন্থে এবং পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল। বিচ্ছিন্নভাবে মুদ্রিত দুই পক্ষের এই-সব চিঠিপত্রের পূর্ণাঙ্গরূপ প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিবরণসহ এই গ্রন্থে সংকলিত হয়েছে। বইটি প্রকাশে রবীন্দ্র-অনুরাগী ছাত্র-ছাত্রী, গবেষক এবং আগ্রহী পাঠকগণ বিশেষভাবে উপকৃত হবেন। বিশ্বভারতী-প্রকাশিত চিঠিপত্র' পর্যায়ভুক্ত বর্তমান খণ্ডটি সংকলন ও সম্পাদনা করেছেন সজনীকান্ত দৌহিত্রী শ্ৰীমতী সাগর মিত্র। গ্রন্থনবিভাগের অধ্যক্ষ শ্ৰীসুধেন্দু মণ্ডল ও কর্মীদের তৎপরতায় এই গ্রন্থ প্রকাশিত হল। 莺 • So, so শ্ৰীসুজিতকুমার বসু ১৭ বৈশাখ ১৪১১ উপাচার্য। বিশ্বভারতী