পাতা:চিঠিপত্র (ঊনবিংশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


যেতে প্রতিশ্রুত। ৪ দ্র. রবীন্দ্রনাথের পত্র-৩৫ ৫ দ্র, সজনীকান্তের ১৭-সংখ্যক পত্রের সূত্র ৫ ৬ “শনিবারের চিঠি’ ১৩৪৬ চৈত্র, ১২শ বর্ষ, ষষ্ঠ সংখ্যায়, রবীন্দ্রনাথের ‘মাছি তত্ত্ব’ কবিতাটি প্রকাশিত হয় (পৃ. ৭৭১-৭৪)। দ্র, ‘প্ৰহাসিনী’, রচনা ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯৪০। পত্র-২০ ১ ঝাড়গ্রামের রাজা কুমার নরসিংহ মল্লদেব। ২ অনিলকুমার চন্দ। ৩ পরবর্তী বৃহস্পতিবার-২১/৩/৪০। ৪ সোমবারে তারিখ ছিল—২৫/৩/৪০। ১ বায়োকেমিক মতে নেট্রাম সালফ ডায়বেটিসের প্রধান ওষুধ। রবীন্দ্রনাথের বায়োকেমিক মতে চিকিৎসার নির্দেশানুযায়ী, সজনীকান্তের ওই ওষুধে ভাল ফল হয়েছিল। (দ্র, রবীন্দ্রনাথের পত্র-৩৮) ২ বোরিক অ্যাণ্ড ডিউয়ির বায়োকেমিক চিকিৎসার বই—“টুয়েলভ টিসু রেমেডিজ’। ৩ এইবার রবীন্দ্রনাথ কালিম্পঙ অভিমুখে যাত্রা করেন ২০ এপ্রিল, ১৯৪০ । কালিম্পঙ থেকে কবি কলকাতায় ফিরে এসেছিলেন আষাঢ়ের মাঝামাঝি—২৯ জুন, ১৯৪০। (দ্র, ‘রবীন্দ্রজীবনী’ ৪, পৃ. ২৩১-৩৯) このミ