পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মুখোপাধ্যায়, গৌরগোপাল ঘোষ, অপূর্বকুমার চন্দ প্রমুখ। বলা বাহুল্য, তালিকাবদ্ধ ছাত্রদের সকলেই যে একই কালে বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলেন তা বলা যায় না। পত্র ৪৫ । মকুন্তু না পক্ষী ।” এই সময় নানা ধরনের কাজে, কলকাতা শাস্তিনিকেতন শিলাইদহ অঞ্চলে রবীন্দ্রনাথ যাতায়াত করেছেন, সম্ভবত নিজের দ্রুত স্থান পরিবর্তনের দিকে লক্ষ রেখেই এই মন্তব্য। রবি-জীবনীকার ঐ সময়ে তার যাতায়াতের যে প্রমাণ দিয়েছেন, সংক্ষেপে দেখানো হল— ২ ভান্দ্র ১৩১৪, আচার্য জগদীশচন্দ্র বস্তুর সঙ্গে শান্তিনিকেতন থেকে রবীন্দ্রনাথ কলকাতায় আসেন। ৩ ভাদ্র থ্যাকার কোম্পানি গিয়েছেন ; ৪ ভাদ্র স্বকিয়া স্ট্রট, পাশিবাগান ইত্যাদি অঞ্চল ; e ভাজ বালিগঞ্জ এবং ঐ দিনই কলকাতা থেকে শান্তিনিকেতনে ফিরেছেন । ২২ ভাত্র সপরিবারে কলকাতা গিয়েছেন । ২৬ ভাদ্র শিলাইদহে রওনা হয়েছেন । তুলনীয়, 'কড়ি ও কোমল' ( প্রথম সং ১২৯৩)-ভুক্ত, ভ্রাতু-পুত্রী ইন্দিরা দেবীর উদ্দেশে রচিত ‘পত্র’ শীর্ষক কবিতার প্রথম কয়েকটি छ्न्ज মা গো আমার লক্ষ্মী, মনিস্কি না পক্ষী । এই ছিলেম তরীতে, কোথায় এছু ত্বরিতে ! কাল ছিলেম খুলনায়, তাতে তো আর ভুল নাই, কলকাতায় এসেছি সন্ত, ৰসে বসে লিখছি পদ্য ।