পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কিন্তু দেশের প্রচলিত শিক্ষাব্যবস্থা, অর্থাৎ ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষাপাস করানোই শান্তিনিকেতন বিদ্যালয়ের লক্ষ্য হয়ে উঠুক, রবীন্দ্রনাথ তা কোনোদিনই প্রসন্নমনে স্বীকার করে নিতে পারেন নি ; বিশেষত বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠার পর ও পরীক্ষা পাসের দিকে বিদ্যালয়ের এরকম নির্ভরতা তাকে হতাশ করে । কিন্তু অভিভাবকদের অধিকাংশের ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার আদর্শ বিদ্যালয়ে সর্বাংশে প্রতিষ্ঠা করা তার পক্ষে সম্ভব হয় নি ; উপরন্তু বিদ্যালয়ের কোনো কোনো শিক্ষক ও অভিভাবকদের মতের সমর্থক ছিলেন । প্রসঙ্গক্রমে এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, তৎকালীন বাংলার গভর্নর লর্ড লিটন রবীন্দ্রনাথের শিক্ষাদর্শের প্রতি বিশেষ শ্রদ্ধাবান ছিলেন । ১৬ জানুয়ারি ১৯২৬ খৃস্টাব্দে রবীন্দ্রনাথকে লেখা একটি চিঠিতে লিটন এরূপ মন্তব্য করেছেন : “Visva-Bharati is at present unique and as you say it has grown from within and owes its success to its independence from conventional standards.--- I see no reason whatever why it should not some day enjoy a charter of its own and challenge competition with Universities of a different stamp.” পত্র ৮৭ ৷ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে হিবার্ট বক্তৃতা দানের জন্ত আমন্ত্রিত তয়ে রবীন্দ্রনাথ ১৯২৮ খৃস্টাব্দের মে মাসে ইংল্যাণ্ডের উদ্দেশুে যাত্র। করেন, কিন্তু অস্বস্থতার জন্ত র্তাকে কলম্বো থেকে শাস্তিনিকেতনে ১. ক্রসনৎকুমার বাগচী-রচিত ‘রবীন্দ্রনাথ ও কয়েকজন রাজপুরুষ’ গ্রন্থের (প্রকাশ, eee DDDSBBB BDDBBS BBBB BB BBBD DDDDDD S AMAAAS প্রকাশিত ।