পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পত্র ৮৯ ৷ পত্রশেষে 'শুক্ল ত্ৰয়োদশী’র উল্লেখ থেকে এই চিঠির তারিখ নিরূপণ করা হয়েছে । “রথীরা এখনো আসিয়া পৌছায় নাই ।” ১৯২৮ খৃস্টাব্দের ১৭ মে বুখীন্দ্রনাথ প্রধানত চিকিৎসা ও বিশ্রামের জন্ত সপরিবারে ইউরোপ গিয়েছিলেন, ৯ নভেম্বর ১৯২৮ তার স্বদেশে ফিরে আসেন । পত্র ৯০ । “রথ ফিরে এসে কাজে লেগে গেছে । শ্রনিকেতনের ভার সম্পূর্ণ তার উপরে ।" ১৯২৮ খৃস্টাব্দের শেষের দিকে ইউরোপ থেকে ফিরে বুধীন্দ্রনাথ ঐমিকেতন-সচিবপদের দায়িত্ব গ্রহণ করেন । পত্র ৯ ১ । "নাগপুর দিয়ে তাসা সম্ভব হল না ।” ১৯৩৯ খৃস্টাব্দের ২ মার্চ হিবার্ট বক্তৃতাদানের জন্ত রবীন্দ্রনাথ ইংল্যাণ্ডের উদ্দেশে যাত্রা করেন । এই সময়ে তিনি ইউরোপ রাশিয়া ও আমেরিকা ভ্রমণ করে ৩১ জানুয়ারি ১৯৩১ বোম্বাইয়ে নামেন। বোম্বাই থেকে তিনি ইম্পিরিয়াল মেল ট্রেন ধরে এলাহাবাদ হয়ে কলকাতায় আসেন । পত্র ৯৪ । "অমুস্থ শরীর নিয়ে চলে গিয়েছিলুম বোটে," হেমন্তবালা দেবীকে লেখা ২২ অক্টোবর ১৯৩৩ তারিখের একটি চিঠিতে রবীন্দ্রনাথ লিখছেন, "শরীরটা ভালো নেই । ভাবছি বোটে করে গঙ্গাযাত্রা করব । খড়দহের সামনে বোট বাধা আছে ।" এরপর ৫ নভেম্বর ১৯৩৩ তারিখে আর একটি চিঠিতে লিখছেন, “দ্ধৰ্ব্বল শরীর নিয়ে গিয়েছিলুম বোটে। ইনফ্লুয়েঞ্চ সংগ্রহ করে দুর্বলতর Voe a