পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরীক্ষার্থীরূপে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাদানের ষোগ্যতা অর্জনের উদ্বেঙ্গে क्रिमठानांथ ठांकूब्र, नाखांबळ्ठ अङ्बमांब्र ७ ब्रकेटामांथ ठांकूब थे जबर्ब्र শান্তিনিকেতন বিদ্যালয়ে কিছু কিছু ক্লাস নিতেন ।

  • যে কয়দিন তিনি আইন পড়ার উপলক্ষ্যে কামাই করিয়াছেন সে কয়দিনের বেতন কাটিবার প্রয়োজন নাই ।”

বিদ্যালয়ে শিক্ষকের অনুপস্থিতি ঘটলে কোনো কোনো ক্ষেত্রে বেতন কাটার নিয়মের দৃষ্টান্ত এখানে যেমন লক্ষ্য করা যায়, তেমনি অভিভাবক ছাত্রের বেতন দিতে বিলম্ব করলে কোনো কোনো ক্ষেত্রে দণ্ডদপনের সিদ্ধাস্ত গ্রহণ রবীন্দ্রনাথের চিঠি থেকেই জানা যায়। ২৫ পৌষ ১৩৭৯ বঙ্গাব্দে অক্ষয়চন্দ্র সরকারকে রবীন্দ্রনাথ লিখছেন, "–বিদ্যালয়েৰ নিয়মিত ব্যয় প্রতি মাসে আমাকে বহন করিতে হয়— একটা হিসাৰ করিয়া না চলিলে এক দিন বিদ্যালয়কে গুরুতর সঙ্কটের মধ্যে উপনীত করা হইবে । অতএব বেতন সম্বন্ধে আমি অন্তান্ত বিদ্যালয়ের সাধারণ নিয়ম দৃঢ়ভাবেই রক্ষা করিতে ইচ্ছা করি । অর্থাৎ প্রতি মাসের ১•ই তারিখের মধ্যে সেহ মাসের বেতন প্রত্যাশা করিৰ– দশ দিনের পর হইতে প্রত্যহ এক জানা দও গ্রহণ করা হইবে— সেই মাস পূর্ণ হইলেও বেতন না পাইলে পর মাসের ১৫ই তারিখ পৰ্য্যন্ত অপেক্ষা করিয়া ছাত্রকে বিদ্যালয় হইতে বিদায় করিতে বাধ্য হইব । ছুটির সময়কার বেতন । বাঙ্গ পড়িৰে না ।” À : ‘সাধারণী', 'নবজীবন’ ইত্যাদি পত্রিকার সম্পাদক অক্ষয়চক্রের পুত্ৰ । অচ্যুতচজ শাভিনিকেতন বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। অচ্যুত বিদ্যালয়ে

  • . जडेव],*ङ्गदौडावीका' नरकजब ४०, cनोब se**, *. ने*** li

\ల్స్ని,