পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


*শাস্তিনিকেতনের আশ্রমের সহিত বিদ্যালয়ের সংশ্রব প্রার্থনীয় নহে ।” श्रृं. २१२ ।। শান্তিনিকেতন ব্ৰহ্মাচর্যাশ্রম’ ( ১৩৫৮ ) গ্রন্থে এই অংশের পুলিনবিহারী সেন -লিখিত টীকা নিম্নরূপ—

  • বাংলা ১২৬৯ সালে মহযি দেবেন্দ্রনাথ শাস্তিনিকেতনের জমির পাট৷ লইয়াছিলেন ; ১২৯৪ সালে ‘নিরাকার ব্রহ্মের উপাসনার জন্ত একটি আশ্রম সংস্থাপনের অভিপ্রায়ে’ ও তাহার অমুকুলকার্যসম্পাদনাৰ্থে মহর্ষি এই সম্পত্তি ট্রক্টদিগের হাতে অর্পণ করেন ও এই আশ্রমের ব্যয়নির্বাহার্থে আর্থিক ব্যবস্থা করিয়া দেন । ‘এই ট্রস্টের উদ্দিষ্ট আশ্রম-ধর্মের উন্নতির জন্ত ট্রক্টগণ শাস্তিনিকেতনে ব্রহ্মবিদ্যালয় ও পুস্তকালয় সংস্থাপন করিতে পরিবেন । পরে ১৩০৮ সালে মহৰ্ষির অনুমতিক্রমে র্তাহার ধর্মদীক্ষাবার্ষিকীতে রবীন্দ্রনাথ শাস্তিনিকেতনে ব্রহ্মচর্যাশ্রমের প্রতিষ্ঠা করেন ; এ ক্ষেত্রে 'আশ্রম’ বলিতে উক্ত ট্রস্ট অনুযায়ী পূর্বাগত ব্যবস্থা, ও "বিদ্যালয়’ বলিতে নবপ্রতিষ্ঠিত ব্ৰহ্মচর্যাশ্রম বুঝিতে হুইবে । পরে আশ্রম ও বিদ্যালয় সাধারণত সমার্থক হইয়াছে ।"

“সম্প্রতি নানা উদ্বেগের মধ্যে আছি পৃ ১৭৯ ৷ রবীন্দ্রনাথের এই পত্র রচনাকালে ( ২৭ কার্তিক ১৩০৯ ) তার সহধর্মিণী মৃণালিনী দেবী মৃত্যুশয্যায় । মৃণালিনী দেবীর মৃত্যু হয় ৭ অগ্রহায়ণ ১৩০৯ বঙ্গাবো । やS も。