পাতা:চিঠিপত্র (দ্বাদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শাস্তিনিকেতন (পত্র অগ্রহায়ণ ১৩২৬ ছাত্র মুলু দুর্গম স্থানে যাইবার, অজানা লক্ষ্য সন্ধান করিবার প্রতি মানুষের একটা স্বাভাবিক উৎসাহ আছে, বিশেষত যাদের বয়স অল্প । এঠ যাত্রা কালে নিজের শক্তি প্রয়োগ করিয়া BBB BB BBK BBuBB BBB BBBBBB KBB BBB BB S কেননা, এই বকম নিজের শক্তির পরিচয়েই মানুষের তত্ত্বপরিচয়ের প্রবলতা । এই কাৰণে আমার মত এই যে, শিক্ষাব প্রথম ভূমিকা সমাপা হইবার পরেই ছাত্রদিগকে এমন পাঠ দিতে হইবে যাহ। তাহাদেব পক্ষে যথেষ্ট কঠিন । অথচ শিক্ষক এই কঠিন পাঠ নাহাদিগকে এমন কৌশলে পার করাইয়া দিবেন যে, ইহা তাহাদের পক্ষে সম্পূর্ণ অসাধা না হয় । অর্থাং শিক্ষা প্রণালী এমন হওয়া উচিত, যাহাতে ছাত্রেরা পদে পদে দুরূহ তা অনুভব করে, অথচ তাই অতিক্রমও করিতে পারে । ইহাতে তাহণদের মনোযোগ সৰ্ব্বদাই খাটিতে থাকে এবং সিদ্ধিলাভের আনন্দে তাহা ক্লাস্ত হইতে পায় না । এখানকার বিদ্যালয়ে আমি যখন ইংরেজি শিখাইবার ভার লইলাম, তখন এই মত অনুসারে আমি কাজ করিতে প্রবৃত্ত হইলাম। পঞ্চম, চতুর্থ ও তৃতীয় শ্রেণীর ইংরেজি শিক্ষার দায়িত্ব আমার হাতে আসিল । তৃতীয় শ্রেণীতে আমি যে সকল ইংরেজি রচনা পড়াইতে সুরু করিলাম, তাহা

gס\ס\