পাতা:চিঠিপত্র (প্রথম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বোলতার বেড়াতে যাবেন। আমি আজ বেড়াতে যাব না। কি করি একলা বসে তাই তোমাকে চিঠি লিখছি৭ আমরা রোজ সন্ধ্যে বেলায় বেড়িয়ে-টেড়িয়ে এসে বড় বোটে আড্ডা করি। কোন কোন দিন গান বাজন হয়। কাকিম ভাই তুমি এলে বেশ হোতে । দু-তিন দিন হোলো ছোট বোটের সঙ্গে সমস্ত দিন আমাদের কোন সম্পর্ক থাকে না কেবল রাত্তিরে যা আমরা শুতে যাই । সে বেচারা একলা চরের ধারে পড়ে থাকে। বোলতাতে মেজদিতে ছোট বোটটা ভারি পছন্দ করেন। আমার একটুও ভাল লাগে না। আমি বড় বোটটা বেশ পছন্দ করি । এখন মেজদিরা সারাদিন বড় বোটে থাকেন। পদে এসেছেন। এখন বলতে হয়েছে বড় বোটটা ভাল । 譬 রবিকাকা বলছেন এখানে বেশ আছি কলকাতায় যাব না । বছরখানেক থাকলেও থাকতে পারি। আমরা গিয়ে তোমাদের কত বদল দেখবো । তোমরাও আমাদের অনেক বদল দেখবে । সুইদার হাতে পড়ে এবারে সখি সমিতির আচ্ছা অবস্থা হয়েছিল । আচ্ছ ছেলেমানুষি কাণ্ড যাহোক। একজন বড় ন৷ থাকলে কি চলে । অন্তবারে রবিকাকা থাকতেন কোন গোলমাল হোতে না । সখি সমিতি কি রকম হলো সব লিখো । আমরা : একখানা বিবাহ উৎসব পেয়েছি। রকিকাকা যেরকম করেন হাসতে হাসতে দম আটকে যাবার যোগাড় হয়। তুমি থাকলে কিছুতেই না হেঁসে থাকতে পারতে না । o আজকাল গরম পড়েছে। শীত এক পা দুই পা করে সরে న8