পাতা:চিত্রাবলি - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিন্ত্রাবলি । —শচীন্দ্রের সহিত তিনি সুবালার বিবাহ দিবেন । কতকটা সে কারণেও বটে, কতকটা সৎপ্রবৃত্তির বশবৰ্ত্তী হইয়াও বটে, তিনি ধাল্যাবধি শচীন্দ্রের লেখাপড়ার সৰ্ব্ববিধ ব্যয়-ভার বহন করিয়া আসিতেছিলেন । যে অর্থ শচীন্দ্রের জন্য তাহাকে ব্যয় । করিতে হইয়াছিল, সে অর্থে তিনি অনেক যোত্রবান পাশ-করা পাত্র ও পাইতে পারিতেন। কিন্তু, কতকট হরিচরণের আনুগত্যহেতু, কতকটা বা শচীন্দ্রের প্রতি স্নেহবশতঃ, তিনি শচীন্দ্রের সম্বন্ধে ব্যয়-বাহুলো কখনই ত্রুটি করেন নাই । সেই শচীন্দ্ৰ তাঙ্গাকে নিরাশ করিল! পিতা হরিচরণ কলিকাতা হইতে শচীন্দ্রকে লইয়া যাইবার জন্য কলিকাতায় আসিলেন। শচীন্দ্র পিতুর অনুরোধ উপেক্ষা করিল। শচীন্দ্ৰ কহিল,-“আমি প্রতিজ্ঞায় আবদ্ধ আছি। আমি এখন বিবাহ করিব না।” পিতা বুঝাইলেন,—"ব্রাহ্মণের জাতি যাইবে । আমি তোমার অক্ষম পিতা। তিনি তোমায় মানুষ করিয়াছেন।” শচীন্দ্র উত্তর দিল,—“ঈশ্বরের রাজ্যে জাতি আবার কি ? আমি ওসব মানি না। বিশেষতঃ তিনি যখন আমার জন্ত টাকা খরচ করেছেন, তখন প্রকারান্তরে পণ গ্রহণ করাই হয়েছে। কিন্তু আমি প্রতিজ্ঞায় আবদ্ধ,—আমি এ বাল্য-বয়সেও বিবাহ করিব না, পণ লইয়াও বিবাহ করিব না।” ...? a