পাতা:চিদ্বিলাস - বিনয় কুমার সান্যাল.pdf/৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৩৯
বেদান্তদর্শন।

 শ্রুতিতে নির্গুণ, নির্ব্বিশেষ, প্রভৃতি যে সমস্ত বাক্য আছে, রামানুজ তাহার অন্য প্রকার ব্যাখ্যা করেন। নির্গুণ শব্দে গুণ নাই বা নির্ব্বিশেষ শব্দে তাঁহার বিশেষণ নাই এরূপ অর্থ করেন না। তিনি বলেন নির্গতো বিশেষঃ যম্মাৎ তৎ ইতি নির্গুণং, অর্থাং যাঁহা হইতে বিশেষণ নির্গত হইয়াছে ইত্যাদি। এরূপ অর্থ ব্যাকরণ বিরুদ্ধ নহে; বস্তুতঃ শ্রুতি কি ভাবে এই সকল বাক্য ব্যবহার করিয়াছেন তাহা ঠিক করিয়া কেহই বলিতে পারেন না। যাঁহার যেরূপ বোধ হয় তিনি সেইরূপই ব্যাখ্যা করেন।

 রামানুজ বলেন যে ব্রহ্মের বিশেষণ স্বীকার না করিলে সমস্ত জগৎ মিথ্যা হইয়া যায়, বেদ মিথ্যা হইয়া যায়, সমস্ত ধর্ম্ম ও কর্ম্ম মিথ্যা হইয়া যায়, মতামত সমস্তই ভাসিয়া যায়, অর্থাৎ এ সমস্ত কিছুই নাই এইরূপ হয়। যে ব্যক্তি ঘোরতর কুক্রিয়াসক্ত তাহার সহিত মহাজ্ঞানীরও কোন প্রভেদ থাকে না, কারণ উভয়ই মিথ্যা। ইহা অতি ভয়ানক ব্যাপার।

 দ্বিতীয়তঃ সমস্ত শাস্ত্রই বলেন এবং বেদান্তও