পাতা:চিদ্বিলাস - বিনয় কুমার সান্যাল.pdf/৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৫৭
উপসংহার।

বলিলেন যে ইহাই প্রকৃতি ও পুরুষের সংযোগ ঘটায়। পতঞ্জলি কপিলের সমস্ত কথা স্বীকার করিলেন, কিন্তু অদৃষ্ট যে সৃষ্টির মূল কারণ তাহা স্বীকার না করিয়া জড় অদৃষ্টের পরিচালক ঈশ্বর তত্ত্ব কল্পনা করিলেন। গোতম অতি সতর্কতার সহিত এক অভিনব পন্থায় বিচার করিয়া সকল তত্ত্বের মূল ঈশ্বর তত্ত্ব স্বীকার করিলেন। কিন্তু ইঁহার ঈশ্বর ও পতঞ্জলির ঈশ্বরে এক মহা প্রভেদ আছে; পতঞ্জলির ঈশ্বর অদৃষ্টের পরিচালক পুরুষবিশেষ মাত্র, কিন্তু গোতমের ঈশ্বর পরিদৃশ্যমান জগতের কর্ত্তা। গোতমের সহিত কণাদের বিশেষ অনৈক্য নাই, তবে সৃষ্টির উপাদান কারণ সম্বন্ধে ইনি আর একটু সূক্ষ্ম বিচার করিয়াছেন। জৈমিনি অতীন্দ্রিয় বিষয়টা বিচারের মধ্যে আনিতে একেবারে অনিচ্ছুক; সেই জন্য তিনি একটা সোজা কর্ম্মরূপ ধারা দেখাইয়াছেন, যেটা তাঁহার মতে অনাদি, অনন্ত, শত সহস্র পরিবর্ত্তনের মধ্যেও সদা একভাবে প্রবাহিত। ইনি জীব জগতের আদি ও পরিণাম কিছুই কল্পনা করিতে প্রস্তুত নহেন। বেদব্যাস জীব জগতের