পাতা:চীন ভ্রমণ - ইন্দুমাধব মল্লিক.pdf/১০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করার সময় সমস্যা ছিল।

হংকং ।

৯৯

নামক এক প্রকার কাঠি আছে, তাহাই ডান হাতের অঙ্গুলির দুই ফাঁকে দুইটি ধরিয়া তদ্বারাই আহারীয় দ্রবাদি অতি দক্ষতার সহিত উঠাইয়া খায়। পূৰ্ব্বেই বলিয়াছি, তাহাদের প্রধান আহার ভাত ও মাছ। মাঝখানে একটি বড় পাত্রে করিয়া ভাত রাখা হয়। পাত্রের চতুঃপার্শে কাঠের থালার উপর কাচকড়ার বাটীতে তরকারী সাজান থাকে। সকলে চতুর্দ্দিকে ঘিরিয়া বসে। প্ৰত্যেকে এক একটী ছোট পেয়ালা করিয়া ভাত লইয়া বাম হাতে কারিয়া মুখের কাছে ধরে ও ডান হাতের কাটী দিয়া অল্প অল্প ভাত মুখের মধ্যে উঠাইয়া দেয়; আর মধ্যে মধ্যে এইরূপে তারকারীর বাটী হইতেও তরকারী উঠাইয়া লইয়া মুখে দেয়। ছিবড়ে বা মাছের কাঁটা ঐ কাঠি দিয়া মুখ হইতে বাহির করিয়া লইয়া সম্মুখে এক জায়গায় জমা করে। এত দক্ষতার সহিত তাহারা কাঠী দুটী চালনা করে যে, একটি ভাত বা একটু তরকারী স্থানান্তরে পড়ে না। অনেকেই এক বাটি হইতে তরকারী লইয়া থাকে। বিক্রেতাও মধ্যে মধ্যে আপনার দ্রব্য হইতে উঠাইয়া লইয়া খায়। এক সঙ্গে খায় ও বেচে। “সকড়ী” বলিয়া কোনও বিচার নাই। খেয়ে