পাতা:চেনা দায় - প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

চেনা দায়।

৪৫


 “পনরদিবসের মধ্যে যখন দেখিলাম, বছিরুদ্দিন আমার বাড়ীতে আর আগমন করিল না, তখন সেই সকল অলঙ্কারের দুই একখানি বিক্রয় করিবার বাসনা করিলাম। আমাদিগের বাড়ীর সন্নিকটে যে স্বর্ণকার বাস করিত, এবং যাহার নিকট গিয়া পূর্ব্বে একখানি গহনা যাচাই করিয়া দেখিয়াছিলাম, আর একখানি গহনা লইয়া পুনরায় তাহার নিকট গমন করিলাম, এবং তাহাকে কহিলাম, “কয়েকখানি অলঙ্কার আমার নিকট অনেকদিবস পর্য্যন্ত বন্ধক ছিল। যে ব্যক্তির অলঙ্কার, তিনি সুদসমেত টাকা প্রদান করিয়া সেই সকল অলঙ্কার পুনরায় গ্রহণ করিতে অসমর্থ হইয়া, সেই সকল অলঙ্কার আমাকে বিক্রয় করিয়া লইতে বলিয়াছেন। সুতরাং সেই অলঙ্কার গুলি আমি ক্রমে বিক্রয় করিয়া ফেলিতে ইচ্ছা করিয়াছি, এবং একখানি আনয়নও করিয়াছি। আমার ইচ্ছা, এই অলঙ্কারখানি গলাইয়া উহাতে কত মূল্যের সুবর্ণ আছে, তাহা আমাকে ঠিক করিয়া দেও। আমি অপর স্থানে লইয়া গিয়া উহা বিক্রয় করিয়া ফেলি। আর যদি তুমি নিজেই উহা ক্রয় করিতে সম্মত হও, তাহা হইলে আমি উহা তোমার নিকট বিক্রয় করিতে প্রস্তুত আছি।

 “এই বলিয়া সেই অলঙ্কারখানি আমি তাহার হস্তে প্রদান করিলাম। তিনি উহা উত্তমরূপে কসিয়া মাজিয়া দেখিয়া আমাকে কহিলেন, “যে ব্যক্তি এই অলঙ্কারখানি আপনার নিকট বন্ধক দিয়াছিল, সেই ব্যক্তি আপনার পরিচিত, কি অপরিচিত?”

 আমি। কেন মহাশয়! আপনি একথা জিজ্ঞাসা করিতেছেন?

 স্বর্ণকার। প্রয়োজন হইয়াছে বলিয়াই জিজ্ঞাসা করিতেছি।

 আমি। কি প্রয়োজন?