পাতা:ছেলে ভুল - প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

ছেলে-ভুল।


তাঁহারা আপন সন্তানকে ক্রোড়ের বাহির হইতে দিতেন না; তাই তাঁহারা দাসদাসীগণের উপর বিশ্বাস করিয়া, তাহাদিগের হস্তে আপন আপন বহুমূল্য রত্ন কখনই প্রদান করিতে সাহসী হইতেন না। সুতরাং ‘ছেলে-ভুল’ এ কথা কখনও শুনিতে পাওয়া যাইত না।

 আর এখন পাশ্চাত্য-সভ্যতা আমাদিগের অন্তঃপুরে প্রবেশ করিয়াছে। স্ত্রীগণ শিক্ষিতা(?) হইয়া, বা ‘শিক্ষিত হইয়াছেন’ এই ভান করিয়া দেশের মুখোজ্জ্বল করিতেছেন! তাই মধ্যে মধ্যে এখন ছেলে-ভুল হইয়া থাকে। তাহাদিগের বিবেচনায় এখন গর্ভধারণের অন্যরূপ ব্যবস্থা হইলেই ভাল হইত; কিন্তু স্বভাবের নিয়ম একবারে পরিবর্ত্তিত হইবার সম্ভাবনা নাই বলিয়াই, এই ভয়ানক মন্ত্রণা তাঁহাদিগকে সহ্য করিতে হইতেছে! তবে সন্তান প্রস্তুত হইবার পর, আর তাঁহাদিগের কোনরূপ কষ্ট থাকে না। সন্তানও ভূমিষ্ট হইল, তিনিও তাহাকে চাকর-চাকরাণীর হস্তে সমর্পণ করিয়া, যাহাতে নিজের মনকে সন্তুষ্ট রাখিতে পারেন, তাহার চেষ্টায় নিযুক্ত হইলেন। ভৃত্যগণই সন্তানের লালনপালনে নিযুক্ত হইল। মাতৃ-স্তনদুগ্ধের পরিবর্ত্তে গর্দ্দভীদুগ্ধে তাহাদের জীবন রক্ষা হইতে লাগিল। মাতৃস্নেহের পরিবর্ত্তে নীচ-বংশোদ্ভবা অসচ্চরিত্রা পরিচারিকার স্নেহে সন্তান পরিবর্দ্ধিত হইতে লাগিল। এরূপ অবস্থায় স্নেহময়ী জননী, তাঁহার স্নেহময় পুত্রকে ভুল না করিবেন ত কাহাকে ভুল করিবেন? অবশ্য এরূপ অবস্থা এখন পর্য্যন্ত সকলের গৃহে প্রবেশ করে নাই। পূর্ব্বের নিয়মানুসারে এখনও কোন কোন প্রসূতি আপন আপন সন্তান প্রতিপালন করিয়া থাকেন সত্য; কিন্তু আরও কিছুদিবস পরে, বা তাহাদের অবস্থার পরিবর্ত্তনের সঙ্গে সঙ্গে আরও যে কি হইবে, তাহা ভাবিয়া উঠিতে পারি না। এখন যাঁহাদের অবস্থার