পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/১৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


У о о জয়তু নেতাজী না । বরং শেষে তাহাবই আশ্রয়ে, তাহারই আবরণে, আপনাদের মহাপরাজয় ঢাকিবাব চেষ্টা করিয়াছে ; নিজেদের মুখরক্ষা, মানরক্ষার জন্ম তাহারই কীৰ্ত্তি-গৌরবের ছায়ায় আসিয়া সমবেত হইয়াছে। আজ তাহাদের সকল বুদ্ধি সকল কৌশল যখন ব্যর্থ হইতে চলিয়াছে—দীনতা ও হীনতা, আত্মপ্রবঞ্চন ও পর-প্রবঞ্চনা যতই বীভৎস হঠয়া উঠিতেছে, ততই জনগণকে দগু. কৌপানের মাহাত্ম্য বুঝাইতেছে ; মানুষ যখন আসন্ন সৰ্ব্বনাশের ভয়ে চঞ্চল হইয়া উঠিয়াছে তথন তাহাদিগকে পরম-বৈরাগ্যেৰ উপদেশ দিতেছে! কিন্তু আর কেহ তাহাতে ভুলিবে না . বণিকবৃত্তির দ্বারা সওদা-করা, নিদিষ্ট ওজনের মুক্তি তাহাবা চায় না—জানে, তাতা মুক্তি নয়, বন্ধনেরই একটা নূতন ফাদ। ইহাও জ্ঞানে যে, দেশকে যে ভালবাসে দেশ তাহারই ; সেই অধিকার মুভাষচন্দ্রের মত আর কাহারও নাই, অতএব দেশ মুভাষের । সেই দেশের সম্বন্ধে অপর পক্ষের সহিত কোনরূপ বোঝাপড়া করিবার অধিকার আক কাহার ও নাই । সুভাষ মরে নাই, তাহার জীবনে কোটি জীবন জাগিয়াছে । ধূঙরাষ্ট্রের সভায় শকুনির সহিত পাশাখেলার যে ফলাফল তাহাই ভারতের ভাগমীমাংসা নয় । তাই আজ যখন গান্ধীধৰ্ম্মী কংগ্রেস একটা মহামিথ্যাকে স্বাধীনতা-নাম দিয়া, সেই স্বাধীনতা সে লাভ করিয়াছে বলিয়া, ধমক ও চীৎকারের দ্বারা সকলকে নিরস্ত করিবার আশা করিতেছে, এবং যখন সেই স্বাধীনতার সম্ভাবনী মাত্রে চতুদিকে শিব ও সারমেয়গণের চীৎকার, কবন্ধের উ}