পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> ૨8 জয়তু নেতাজী তাহাতে যাহা লাভ হইযাছে, এবং তইবে সে বিষয়ে সুভাষচন্দ্র সেইকালেই অব্যর্থ ভবিষ্যৎ-বাণী কবিয়াছিলেন । কংগ্রেস এখনও সেই হীন নীতির কিছুমাত্র পরিবর্তন করে নাই ; শুভাষচন্দ্র এখনও তাহার শত্ৰু, গান্ধী-কংগ্রেস তাহাকে সেই যে বর্জন কবিয়াছিল এখনও তেমনই করিতেছে ; বরং এখন আরও নিল্লজি ও নিভীকভাবে সমগ্র জাতিকে তেমনই প্রবঞ্চন করিতেছে ; সুভাষচন্দ্র যদি আজ উপস্থিত থাকিতেন, তবে গান্ধী-কংগ্রেসের প্রতি র্তাহাব যেটুকু শ্রদ্ধা ও অবশিষ্ট ছিল তাহা ও লুপ্ত হইত । এ প্রসঙ্গ প্রায় শেষ হইয়া আসিয়াছে । আমি বলিতেছিলাম—সুভাষচন্দ্রকে নেতাঞ্জী' নামে আমরা যে এমন আকুল তষ্টয়া সম্বোধন কবি, তাহা কি আমাদের পক্ষেও একটা আত্মপ্রবঞ্চনা নয় ? সেই গান্ধী ও গান্ধী-চক্ৰ এখন ও পূর্ণবিক্রমে তাঙ্গাদের সেই নেতৃত্বকে—সেই ত্ৰিপুৰী-অভিযানকে—জয়যুক্ত করিতেছে । তাছাতে সুভাষচন্দ্রের নামে গৌরব করিবার কি আছে ? সেই প্রেম, সেই ত্যাগ, সেই দিব্যদৃষ্টি ও সেই সত্যনিষ্ঠা যদি এমনই ভাবে ব্যর্থ হয়, তবে সুভাষচন্দ্রের অমর আত্মার যাতনা ও কি অমর হইয়া থাকিবে না ? সেই অবস্থাতেও যদি আমরা তাহাকে নেতাঞ্জী' বলিয়া সম্বোধন করি, তবে তাহা কি সেই পুরুষের পক্ষে একটা মৰ্ম্মাস্তিক পরিহাস নষ্ঠে ? দেশের অধঃস্তুসলমান যে-মহাজীবনের একমাত্র সাধনা—ষে নেভা না হইয়া ক্ষুদ্রতম সেবক ভূত্য হইতেও অসম্মত নয়, যদি দেশতাহার