পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/১৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নেতাঞ্জী 역 করিতে পারবে না ! তাহাক। ঐ মিথ্যা আশা ত্যাগ করিতে পারে না কেন ? এক্ষণে ভাবতবাসীর মনের অবস্থা— বঙ্কিমচন্দ্রের "বিষবৃক্ষে’ব সেই কুন্দনন্দিমীর মত যে-পিত। ছাড়া তাহার আর কেহ নাই, সেই পিতার মৃত্যু-শিয়রে সে বসিয়া আছে ; গভীৰ বাক্রে ও নহীন কক্ষে পিতার প্রাণবায়ু বর্তিগত হইয়া গেল ; তখন ও সেই ক্ষীণ দীপালোকে সে তাঙ্গর মুখেব পানে চাহিয়া আছে– পিতার মৃত্যু হইয়াছে এ বিশ্বাস সে কিছুতে করিবে না, কারণ তাহাব যে আর কেহ নাই ! এমন সৰ্ব্বনাশ কি হইতে পারে । তাই কুন্দনন্দিনী তাহার মৃত পিতাকেও, যতক্ষণ পারে জীবিত মনে কবিয়া সেই মহাভয় দূৰ করিতে চায় । সুভাষচন্দ্র জীবিত কি মৃত—সে বিশ্বাস ভারতবাসীর পক্ষেও তেমনই ; তাহার যে আর কেহ নাই ! তুমি হুঙ্কার করিলে কি হইবে ? শুধু তাহাই নয, আজাদ-হিন্দ সম্পর্কিত অনুষ্ঠান-উৎসব প্রভৃতি কংগ্রেসের চক্ষুশূল হইয়াছে , পাছে মিত্র-পক্ষ অসন্তুষ্ট হন, তাই যাহারা বিদ্রোহী মুভাষের পক্ষ তাতাদের কার্যকলাপ বে-আইনী হইয়া থাকিবে । ত্রিপুরার পবে সুভাষচন্দ্রেব সকল কাৰ্য্যে উহার এইরূপ হুকুম জাবী করিত । তবু এখনও মুখোস সম্পূর্ণ ত্যাগ করে নাই, এখনও ‘জয় হিন্দ বলিতে বাধ্য হয়, এখনও 'নেতাজীকে প্রকাশ্বে অস্বীকার করিতে সাহস পায় না । কংগ্রেসের মাভি ও নেতৃত্ব নেতাজীর নেতৃত্ব কংগ্রেস কখনও মানে নাই, মানিবে না,