পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/১৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জয়তু নেতাজী سيا 4 * কৰ্ম্মে ক্লাস্তিহীনতা, বাস্তব-বুদ্ধি ও কল্পনা-শক্তি, এবং সৰ্ব্বাপর অজেয় আত্মবিশ্বাস ও অকুতোভয়তা—এ সকল গুণের উল্লেখ< নিম্প্রয়োজন । সমগ্র গুণাবলী একত্র করিয়া সুভাষচন্দ্রের দিকে চাহিলে মনে হয় না কি যে, মানব-চরিত্রের উহা একটি অভিনব পূর্ণ-প্রকাশ বটে ? সকল কীৰ্ত্তিকে, সকল জয়-পরাজয়কে, মানব-ভাগের সকল ঘটন-অঘটনকে অতিক্রম ক রয়া, উহা যেন স্ব-মহিমায় বিরাঞ্জ করিতেছে ! কুরুক্ষেত্রের পার্থ ও পার্থসারথি, বুদ্ধ ও চৈতন্য সকলেই যেন উহার মধ্যে লুকাচুরী খেলিতেছে— পুণতঃ কোন একজন নয়, সকলেবই বি ছু-কিছু যেন একটি সূত্রে ‘মণিগণা ইব’ পাশাপাশি মিশিয়া দীপু পাছতেহে ! কিন্তু সেই সূত্র কি ? এই সকল গুণ কোন এক ট গুণকে আশ্রয় করিয়া আছে ? সে তাহার সেই অ তুলনীয়, অপরিমেয় দেশ-প্রেম । কারণ, আমি স্বভাষচন্দ্রেব সেই এক রূপ, সেই এক মূৰ্ত্তি অহৰহ আমার মানস-চক্ষে দেখিতেছি । আজাদ-হিন্দ-ফাথের সৰ্ব্বাধিনায়ক, যোদ্ধ বেশপরিচিত নেতাজী সুভাষচন্দ্র সঙ্গাপুবের বিশাল প্রাঙ্গণে সুসজ্জিত সেনাবাহিনী ও সমবেত জনসমুদ্রের সম্মুখে মঞ্চোপরি দণ্ডায়মান। সে রূপ দেব-সেনানী তারকারি স্কদের রূপষ্ঠ বটে ; হানিবল, সাঁজার, আলেকজাণ্ডার নেপোলিয়নকে কি এরূপ উপলক্ষ্যে ঐ বেশে এমনক দেখা হত । নেতাজী তাঙ্গার মাতৃভূমিকে উদ্ধার করিবার জন্য সৰ্ব্বস্বপশের সেই শপথ-পত্র পাঠ করিতেছেন ; সেনাগণ তাহাদের অভ্যস্ত সামরিক আচার রক্ষা করিবার জন্ত আবেগ রুদ্ধ করিয়া স্থির