পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/২৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরিশিষ্ট ᎼᎽᏠ তাকে—সৰ্ব্বাগ্রে অর্জনীয় বলিক্ষ্ম স্থির করিয়াছিলেন ; ব্রিটিশের শাসনপাশ হইতে মুক্ত হওয়াই ছিল তাহদের একমাত্র সাধনা । সেই শাসন-পাশ হইতে সম্পূর্ণ যুক্ত হইতে না পারিলে—এতটুকুও অবশিষ্ট থাকিলে—ভারত যে বাচিবে না, এবং স্বাধীনতা-বস্তুটি কখনো থও আকারে বা মাত্রাহিসাবে অর্জন করা যায় না, ইহাই তখন শিক্ষিত ভাবতের হৃদয় ও মন উপলব্ধি কবিয়াছে ; আমি স্বাধীনতা-যজ্ঞের পুরোধাদেব কথা বলিতেছি । কিন্তু প্রথম মহাযুদ্ধের শেষে—ঐ যুদ্ধকালে ও তাহার সপ্ত-পরিণাম-অবস্থায়—পৃথিবীর অষ্ঠাষ্ঠ দেশের মত ভারতেও একটা শ্মশান-নৈরাশ্ব ও নিশ্চেষ্টতা নামিয়াছিল, বিশ্বাস ও উৎসাহ নিবিয়া আসিয়াছিল। এই লগ্নে গান্ধী সেই সংগ্রামের নেতৃত্ব গ্রহণ কবিলেন ও মাভৈঃ’ উচ্চারণ কবিয়া বলিলেন,—ম্বাধীনতা-লাভের একট। অব্যর্থ উপায় আমি আবিষ্কার করিয়াছি, সেই সত্যকার স্বাধীনতাই তোম বা লাভ করিবে, যুদ্ধও করিবে, কিন্তু অস্ত্র পরিবর্তল করিতে হইবে । এই আশ্বাসে আশ্বস্ত হইয়া, পুৰ্ব্ব-যোদ্ধা ও নেতৃগণ— প্রথমে প্রতিবাদ করিলেও—পরে তাহার বগুতা ও নেতৃত্ব স্বীকার করিল, তিনিও তাছাদিগকে নূতন যুদ্ধবিদ্যা ও যুদ্ধ-সজ্জায় প্রস্তুত করিতে লাগিলেন। পবে সহসা একদিন ঘোষণা করিলেন—এক বৎসরের মধ্যেই তোমরা স্বাধীনতালাভ করিবে ; এ যেন সেই ‘চেতাবনী'র ভবিষ্যৎ-বাণী ;—এমন দুঃসাহসিক প্রতিশ্রুতি যিনি দান করিতে পারেন, তিনি হয় একজন ভাবান্ধ উন্মাদ, নয় জন-মনের মনস্তৰ অন্তর্যামীর মত আয়ত্ত করিয়াছেন— যাদুকরের মত সেই মনকে লইয়া খেলা সুরু করিয়াছেন। পরে যখন সেই ভবিষ্যৎ-বাণী ব্যর্থ হইল—তাছাতে কোন ক্ষতিই হইল না ; একবার যাদুশক্তির অধীন হইলে আর কিছুতেই সেই মোহ ভাঙ্গে না –তখন তাহার অতি