পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/২৮৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরিশিষ্ট २8१ পারে, কিন্তু উহা আধুনিক ভারতের পক্ষে প্রাণঘাতী। আধুনিক ভারতের, সৰ্ব্বশ্রেষ্ঠ ধর্শ্ববীর ও চিত্ত্বাবীর বিবেকানন-বাহার মত বৈদাস্তিক কৰ্ম্মযোগী একালে ভারতে আবিভূত হয় নাই—তিনিও এই কথা বারবার দৃঢ় কণ্ঠে ঘোষণা করিয়াছিলেন। কিন্তু গান্ধী তো, ভারতের জন্ত নয়—জগতের জষ্ঠ ঐ ধর্থ প্রচার করিবেন ; অতএব, ভারত যদি ঐ ধর্থের ইন্ধন হইয়া তাহার শিখাকে আকাশস্পশা করিতে পারে, তবে নিজে ভস্মীভূত হইয়া জগৎ আলোকিত করিবে ; গান্ধী তাহার ধর্থের পরীক্ষাগাররূপে এই ভারতকে বড় মুবিধাজনক মনে করিয়া থাকিবেন । তাই শেষ পর্য্যস্ত ভারতের চূড়ান্ত দুর্দশ দেখিয়াও তিনি কিছুমাত্র উদ্বিগ্ন বা হতাশ হন নাই । তাছার ঐ কৰ্ম্মনীতি ও ঐ ধৰ্ম্মে ভারতের সব্ব প্রকার ক্ষতি ও চরম দুৰ্গতি হউক, ঐ কংগ্রেস যতই দুনীতিতে ভরিয়া উঠুক, এবং শেষে স্বাধীনতার নামে যে বস্তুই লাভ ইউক—সব দেখিয়াও তিনি চক্ষু মুদ্রিত করিয়াছিলেন ; হিন্দুভারতের কথা ছাড়িয়াই দিলাম। অতএব, গান্ধীকে বুঝিতে হইলে, তাহার কাৰ্য্যকলাপের যথার্থ সমালোচনা করিতে হইলে—আমি ঐ যে তত্ত্বটির কথা বলিয়াছি, উহা বিশেষ ভাবে অবধারণ করিতে হইবে, নতুবা গান্ধী ও গান্ধী-কংগ্রেস সম্বন্ধে ভুল ধারণা ঘুচিবে না । সৰ্ব্বশেষে-গান্ধীও নয়, গান্ধী-কংগ্রেসও নয়—ভারতবাসীর পক্ষ হইতে কেবল তিনটি প্রশ্ন করিয়া আমি এই দীর্ঘ কাহিনী শেষ করিব । প্রথম, ঐ পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার জষ্ঠ্য দায়ী কে ? দ্বিতীয়, এই যে লক্ষ লক্ষ নর-নারী নিহত হইয়াছে—গৃহ-সংসার হইতে উৎপাটিত হইয়া দিকে দিকে হস্ত পশুর মত বিচরণ করিতেছে, ইহার জষ্ঠ দায়ী কে ? তৃতীয়, ত্রিশকোট ভারতবাসীর ভাগ্যবিধাতা হইয়াছে যে কয়জন ব্যক্তি,-সেই ব্রিটিশেরই পৃষ্ঠরক্ষিত হইয়া তাহারা আজ স্বৈরাচারী হইয়া উঠিয়াছে—