পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Qb" জয়তু নেতাজী শিক্ষিত ও অৰ্দ্ধশিক্ষিত প্রসাদজীবী । নিয়মিত নিৰ্ম্মম শোষণের ফলে একদিকে কদম্ন ও নিরম্নতার বীভৎস অবস্থা, আর একদিকে সেই অবস্থা হইতে অল্পাধিক মুক্ত ও কৃতজ্ঞ একটি দাস-সম্প্রদায় । এই দাস-সম্প্রদায়ের সহিত জনসাধারণেব কোন সম্বন্ধ থাকিবে না ; সহানুভূতি ত’ পরের কথা, একজাতিবোধের আত্মীয়তা ও থাকিবে না । ইহ। কেমন করিয়া সম্ভব হইয়াছে তাহ পূৰ্ব্বে বলিয়াছি ; দেশীয় সামাজে উচ্চনীচভেদ থাকিলেও, একট। সামাজিক অন্তোন্ত-নির্ভরত ছিল – সহানুভূতি ছিল, তাহাও আর রহিল না ; ইংরেজী-শিক্ষিত চাকুরিয়ার দল দেশকে, সমাজকে পর করিয়া দিল । একদিকে ইংরেঞ্জের আইন যেমন সেইরূপ স্বাওন্তা-বোধের সহায়তা করিল, অপরদিকে তেমনষ্ঠ বড় বড় চাকুরীর প্রলোভন এবং খেতাবখিলাতের বদান্ত বিতরণ তাহাদিগকে প্রভুর পদে সোঙ্গাগমদে দোতুল কলেবর করিয়া তুলিল। এই যে প্রভুভক্ত চাকুরিয়া-সম্প্রদায় গুহারাও যাহা৩ে কোনরূপ সামাজিক ঐক। অনুভব করিতে না পারে, প্রভুর মনোরঞ্জনের জন্য পরম্পরের প্রতিযোগিতা করে, একে অপরের প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়,-–সে জন্য চাকুরীত্তেও, বেতন ও পদমৰ্য্যাদা অনুসারে কৌলীনোর নানা মেল-বন্ধন অত্যাবশ্যক হইয়াছে । এইরূপে একটা জাতির সংঘ-বুদ্ধি বা সামাঞ্জিক চেতন ক্ৰমে লোপ পাইয়াছে । পুলিশ ও সৈন্যদলভুক্ত অগণিত ক্রীতদাসকে যে কি উপায়ে জাতি ও সমাজ হইতে বিচ্ছিন্ন করিয়া রাখা হইয়াছে, তাহাও এই