পাতা:জীবন-স্মৃতি - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রত্যণবর্তন | 어2 সময় আমরা তাড়াতাড়ি খাইয়। ইস্কুলযাইবার জন্য ভালমানুষের মত প্রস্তুত হইতাম—তিনি বেণী দোলাইয় দিব্য নিশ্চিন্তমনে বাড়ির ভিতরদিকে চলিয়া যাইতেন ; দেখিয়া মনটা বিকল হইত। তাহার পরে গলায় সোনার হারটি পরিয়া বাড়িতে যখন নববধূ আসিলেন তখন অন্তঃপুরের রহস্য আরো ঘনীভূত হইয়াউঠিল । যিনি বাহিরহইতে আসিয়াছেন অপচ যিনি ঘরের, সাহাকে কিছুই জানি না অথচ যিনি আপনার, তাহার সঙ্গে ভাবকরিয়া লইতে ভারি ইচ্ছাকরিত। কিন্তু কোনো সুযোগে কাছে গিয়া পৌছিতেপারিলে ছোড়দিদি তাড়াদিয়া বলিতেন—এখানে তোমরা কি করতে এসেছ, যাও বাইরে যাও',—তখন একে নৈরাশ্ব তাহাতে অপমান, ছ-ই মনে বড় বাজিত । তারপরে আবার তাহদের অলিমারিতে শাসির পাল্লার মধ্যদিয়া সাজানো দেখিতে পাইতাম, কাচের এবং চীনামাটির কত তুর্লভ সামগ্ৰী—তাহার কত রং এবং BB BBuS BBB BBBBB BB BBBBBB BB BBB BS কখনো তাহ চাহিতেও সাহসকরিতাম না । কিন্তু এইসকল দুষ্প্রাপ্য সুন্দর জিনিষগুলি অন্তঃপুরের দুর্লভতাকে আরো কেমন রঙীন করিয়াতুলিত । এমনি করিয়া ত দূরেদুরে প্রতিহত হইয়া চিরদিন কাটিয়াছে। বাহিরের প্রকৃতি যেমন আমার কাছহইতে দূরে ছিল, ঘরের অন্তঃপুরও ঠিক তেমনই । সেইজন্য যখন তাহার যেটুকু দেখিতাম আমার চোখে যেন ছবির মত পড়িত। রাত্ৰি নটার পর অঘোর মাস্টারের কাছে পড়া শেষকরিয়া বাড়ির ভিতরে শয়নকরিতে চলিয়াছি—খড়খড়েদেওয়া লম্ব বারান্দাটাতে মিট্‌মিটে লণ্ঠন জ্বলিতেছে ;–সেই বারান্দ পারহইয় গোটাচার পাঁচ অন্ধকার _িড়ির ধাপ নামিয়া একটি উঠান-ঘেরা অন্তঃপুরের বারান্দায় আসিয়া প্রবেশ করিয়াছি,—বারান্দার পশ্চিমভাগে পূর্বআকাশ হইতে বাকা হইয় জ্যোৎস্নার আলো আসিয়া পড়িয়াছে—বারান্দার অপরঅংশগুলি অন্ধকার—সেই একটুখানি জ্যোৎস্নায় বাড়ির দাসীরা পাশাপাশি পা মেলিয়৷ বসিয়া উরুর উপর প্রদীপের সলিত পাকাইতেছে এবং মৃদুস্বরে আপনাদের দেশের কথা Ş o