পাতা:জীবন-স্মৃতি - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


X ዓ8 জীবন-স্মৃতি । মোচন করিবার ইচ্ছা ছবি ও গান-এ ফুটিয়াছে। না, ঠিক তাহা নহে । নিজের মনের তারট যখন সুরে বাধা থাকে তখনই বিশ্বসঙ্গীতের ঝঙ্কার সকল জায়গ হইতে উঠিয়াই তাহাতে অনুরণন তোলে । সেদিন লেখকের চিত্তযন্ত্রে একট। স্থর জাগিতেছিল বলিয়াই বাহিরে কিছুই তুচ্ছ ছিলনা। একএকদিন হঠাৎ যাহা চোখে পড়িত দেখিতাম তাহারই সঙ্গে আমার প্রাণের একটা সুর মিলিতেছে। ছোট শিশু যেমন ধূলা বালি ঝিনুক শামুক যাহা খুসি তাহাই লইয় থেলিতে পারে কেননা তাহার মনের ভিতরেই খেলা জাগিতেছে ; সে তাপ নার অন্তরের থেলার আননদ দ্বারা জগতের আনন্দখেলাকে সত্যভাবেই আবিষ্কার করিতে পারে, এই জন্য সৰ্ব্বত্রই তাহার আয়োজন ; তেমনি অন্তরের মধ্যে যেদিন আমাদের যৌবনের গান নানা স্বরে ভরিয় উঠে তখনি আমরা সেই বোধের দ্বারা সত্য করিয়া দেখিতে পাই যে, বিশ্ববীণার হাজার লক্ষ তার নিত্য স্তরে যেখানে সাধা নাই এমন জায়গাই নাই—তখন মাহ চোখে পড়ে, যাহা হাতের কাছে আসে তাহাতেই আসর জমিয় ওঠে, দুরে যাইতে হয় না | বালক । ছবি ও গান ও কড়ি ও কোমল-এর মাঝখানে বালক নামক একখানি মাসিকপত্র এক বৎসরের ওষধির মত ফসল ফল ইয়া লীলাসম্বরণ করিল। বালকদের পাঠ্য একটি সচিত্র কাগজ বাহির করিবার জন্য মেজবৌঠাকুরাণীর বিশেষ আগ্রহ জন্মিয়ছিল। র্তাহার ইচ্ছা ছিল, সুধীন্দ্র বলেন্দ্র প্রভৃতি আমাদের বাড়ির বালকগণ এই কাগজে আপনি আপন রচনা প্রকাশ করে । কিন্তু শুদ্ধমাত্র তাহাদের লেখায় কাগজ চলিতে পারে না জানিয়া তিনি সম্পাদক হইয়। আমাকেও রচনার ভার গ্রহণ করিতে বলেন । দুই এক সংখ্যা “বালক” বাহির হইবার পর একবার দুই একদিনের জন্য দেওঘরে রাজনারায়ণ বাবুকে দেখিতে যাই । কলিকাতায় ফিরিবার সময় রাত্রের গাড়িতে ভিড় ছিল ; ভাল করিয়া ঘুম হুইতেছিল না,—ঠিক চোখের উপর