পাতা:জীবন-স্মৃতি - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>b"3て জীবন-স্মৃতি। দেশের কৰ্ম্মক্ষেত্রের উপর দিয়া বারম্বার নিস্ফল অধ্যবসায়ের বন্যা বহাইয় দিতে থাকেন ; সে বন্যা হঠাৎ আসে এবং হঠাৎ চলিয়া যায়, কিন্তু তাহা স্তরে স্তরে যে পলি রাখিয়া চলে তাহাতেই দেশের মাটিকে প্রাণপূর্ণ করিয়৷ তোলে—তাহার পর ফসলের দিন যখন আসে তখন র্তাহাদের কথা কাহারও মনে থাকে না বটে কিন্তু সমস্ত জীবন যাহার ক্ষতিবহন করিয়াই আসিয়াছেন মৃত্যুর পরবর্তী এই ক্ষতিটুকুও তাহারা অনায়াসে স্বীকার করিতে পারিবেন। একদিকে বিলাতী কোম্পানী আর একদিকে তিনি একলা—এই দুই পক্ষে বাণিজ্য-নৌযুদ্ধ ক্রমশই কিরূপ প্রচণ্ড হইয়া উঠিল তাহা খুলনা বরিশালের লোকেরা এখনো বোধ করি স্মরণ করিতে পারিবেন। প্রতিযোগিতার তাড়নায় জাহাজের পর জাহাজ তৈরি হইল, ক্ষতির পর ক্ষতি বাড়িতে লাগিল, এবং আয়ের অঙ্ক ক্রমশই ক্ষীণ হইতে হইতে টিকিটের মূল্যের উপসর্গট সম্পূর্ণ বিলুপ্ত হইয়া গেল,—বরিশাল খুলনার ষ্টীমার লাইনে সত্যযুগ আবির্ভাবের উপক্রম হইল। যাত্রীরা যে কেবল বিনাভাড়ায় যাতায়াত সুরু করিল তাহা নহে, তাহারা বিনা মূল্যে মিষ্টান্ন খাইতে আরম্ভ করিল ! ইহার উপরে বরিশালের ভলণ্টিয়ারের দল স্বদেশী কীৰ্ত্তন গাহিয়া কোমর বাধিয়া যাত্রী সংগ্রহে লাগিয়া গেল । সুতরাং জাহাজে যাত্রীর অভাব হইল না কিন্তু আর সকল প্রকার অভাবই বাড়িল বই কমিল না । অঙ্কশাস্ত্রের মধ্যে স্বদেশহিতৈষিতার উৎসাহ প্রবেশ করিবার পথ পায় না ;—কীৰ্ত্তন যতই জমুক, উত্তেজনা যতই বাড়ক, গণিত আপনার নামত ভুলিতে পারিল না—সুতরাং তিন-ত্রিক্খে-নয় ঠিক তালে তালে ফড়িঙের মত লাফ দিতে দিতে ঋণের পথে অগ্রসর হইতে লাগিল । অব্যবসায়ী ভাবুক মানুষের একটা কুগ্রহ এই যে, লোকেরা তাহাদিগকে অতি সহজেই চিনিতে পারে কিন্তু তাহারা লোক চিনিতে পারেন না ; অথচ ষ্ঠাহারা যে চেনেন না এইটুকুমাত্র শিখিতে র্তাহাদের বিস্তর খরচ এবং ততোধিক বিলম্ব হয় এবং সেই শিক্ষা কাজে লাগানো তাহাদের দ্বারা ইহজীবনেও । ঘটে না। যাত্রীরা যখন বিনামূল্যে মিষ্টান্ন খাইতেছিল তখন জ্যোতিদাদাৰ