পাতা:ঝাঁশির রাণী - জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।


 

ঝাঁশির রাণী।

ঝাঁশি-রাজ্য।[১]

 রাণীর জীবনের ঘটনাগুলি ভাল করিয়া বুঝিতে হইলে, ঝাঁশির পূর্ব্ব-বৃত্তান্ত কতকটা জানা আবশ্যক। ঝাঁশি-রাজ্য বুণ্ডেলখণ্ডের অন্তর্ভূত। প্রথমে ইহা বোরচ্ছার রাজা বীরসিংহদেবের শাসনাধীনে ছিল। দিল্লিপতি আকবর বাদশাহের প্রসিদ্ধ মন্ত্রী আবুল ফজলকে বীরসিংহদেব নিহত করায়, আকবর তাঁহার শাসনের জন্য স্বীয় পুত্র সেলিমকে বুণ্ডেলখণ্ডে প্রেরণ করেন। বীরসিংহদেব ভয়ে পলায়ন করায়, বুণ্ডেলখণ্ড মোগলরাজের হস্তগত হয়। পরে, সেলিম (জাহাঙ্গীর) সিংহাসনারূঢ় হইলে, বীরসিংহের অপরাধ মার্জ্জনা করিয়া, তাঁহাকে বুণ্ডেলখণ্ড প্রত্যর্পণ করেন। জাহাঙ্গীরের মৃত্যু হইলে, শাজাহান-বাদশাহের শাসনকালে, এই দুর্ব্বৃত্ত বীরসিংহদেব, মোগলরাজ্যের অন্তর্গত প্রদেশে লুটপাট আরম্ভ করায়, তাঁহার জায়গীর পুনরায় বাজেয়াপ্ত হয়। সেই সময় হইতে ১৭০৭ পর্য্যন্ত ঝাঁশি-প্রদেশ দিল্লি বাদশাহের শাসনাধীনে ছিল। তদনন্তর, বাহাদুর-শা দিল্লির সিংহাসনে অধিরূঢ় হইলে, তিনি এই ঝাঁশি-প্রদেশ হিন্দু রাজা ছত্রশালকে জাইগীর-স্বরূপ দান করেন। ছত্রশালের অভ্যুদয়ে ঈর্ষান্বিত হইয়া মালোয়ার মুসলমান সুবেদার ও আলাহাবাদের নবাব তাঁহার রাজ্য বারম্বার আক্রমণ করিতে লাগিল।

 রাজা ছত্রশাল এই সময়ে বার্দ্ধক্যদশায় উপনীত হওয়ায় প্রবল যবন সরদারদিগের সহিত প্রতিযোগিতা করিতে অসমর্থ হইয়া অবশেষে স্বকীয়


  1. ইংরাজী শব্দ state অর্থে “সংস্থান” শব্দ মারাঠী ভাষায় ব্যবহৃত হইয়া থাকে।