পাতা:ঝাঁশির রাণী - জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

ঝাঁশির রাণী।

৭৩

সওয়ার রাণীর মস্তকের উপর তলবারের এক দারুণ কোপ বসাইয়া দিল। তাহাতে মস্তকের দক্ষিণ ভাগ একেবারে ছিন্ন হইয়া গেল এবং একটা চক্ষুও বাহির হইয়া পড়িল। ইহার উপরেও দুই এক ছোরার ঘা বসাইয়াছিল। এই সময়ে রাণীও তলবারের এক আঘাতে সেই ইংরাজ- অশ্বারোহীকে যমসদনে পাঠাইলেন। এক্ষণে, তাহার প্রভুভক্ত সেবক রামচন্দ্র রাও তাঁহাকে এইরূপ আহত দেখিয়া অশ্রু বর্ষণ করিতে লাগিল এবং সেখান হইতে তাঁহাকে উঠাইয়া লইয়া নিকটস্থ একটা পর্ণকুটীরে লইয়া গেল। পর্ণকুটারটির অধিকারী গঙ্গদাস বাবাজী। রাণী অত্যন্ত তৃষিত হওয়ায়, বাবাজী তাহাকে গঙ্গাজল পান করিতে দিলেন। রাণীঠাকুরাণী রক্তাপ্লুত দেহে, আঘাতের এই অসহ যন্ত্রণার মধ্যে, তাহার প্রিয় পুত্র দামোদর রাওর প্রতি বাৎসল্য ভাবে একবার দৃষ্টিপাত করিয়া, ইহলীলা সম্বরণ করিলেন।

সমাপ্ত